থানা থেকে দূরত্ব খুব বেশি হলে দুশো মিটার। অথচ গভীর রাতে দুষ্কৃতী দৌরাত্ম চললেও টের পেল না পুলিশ। পর পর গাড়ি এবং দোকানে আগুন ধরিয়ে দিল দুষ্কৃতীরা। এমনই অভিযোগে উত্তেজনা ছড়াল ডুয়ার্সের মেটেলিতে। 

স্থানীয় ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, মঙ্গলবার ভোররাত তিনটে নাগাদ পর পর গাড়ি এবং দোকানে আগুন ধরাতে শুরু করে দুষ্কৃতীরা। মোট চারটি গাড়ি এবং দোকানে আগুন লাগানো হয়। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা টের পেয়ে স্থানীয় বাসিন্দারাই তা নেভাতে শুরু করেন। পরে মালবাজার থেকে দমকল বাহিনী এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে গাড়িগুলি আংশিক পুড়ে গিয়েছে। সম্পূর্ণ ভষ্মীভূত না হলেও দোকান ঘরগুলিরও ক্ষতি হয়েছে। 

এই ঘটনায় পুলিশের ভূমিকায় প্রবল অসন্তুষ্ট এলাকার বাসিন্দা এবং ব্যবসায়ীরা। তাঁদের প্রশ্ন, থানার এত কাছে এভাবে দুষ্কৃতী তাণ্ডব চললেও কেন টের পেল না পুলিশ? কে বা কারা কী উদ্দেশ্যে এই ঘটনা ঘটাল, তা নিয়েই তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা। থানার বাইরে বিক্ষোভও দেখান স্থানীয়রা। এলাকার বাসিন্দাদের অনুমান, শান্তিপূর্ণ এলাকা হিসেবে পরিচিত মেটেলিতে উত্তেজনা ছড়ানোর জন্যই এই কাণ্ড ঘটানো হয়েছে। এর প্রতিবাদে এ দিনই সকাল থেকে মেটেলিতে ব্যবসা বনধের ডাক দিয়েছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। ঘটনার তদন্তে নেমে দোষীদের চিহ্নিত করার চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।