শালিমার স্টেশনে বড়সড় দুর্ঘটনা। এ দিন বিকেলে হঠাৎই ভেঙে পড়ে স্টেশনের নির্মীয়মাণ কংক্রিটের শেড। ভেঙে পড়া শেডের নীচে কয়েকজন শ্রমিকের আহত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। 

জানা গিয়েছে, প্রায় তিন বছর ধরেই শালিমার রেল স্টেশন চত্বরকে ঢেলে সাজানোর কাজ চলছিল। স্টেশন চত্বরেই একটি কংক্রিটের শেড তৈরি হচ্ছিল। লোহার কাঠামো তৈরি করে তার উপরে তৈরি হচ্ছিল ওই শেড। এ দিন বিকেলে আচমকাই সেই শেড হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে। সেই সময় ওই শেডের নীচে বেশ কিছু শ্রমিক কাজ করছিলেন। 

শেড ভেঙে পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই ওভারহেডের বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে পড়ে। তাতেই বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন দুখা পাসোয়ান নামে এক শ্রমিক। তার মৃত্যু হয়েছে বলেও বেসরকারি সূত্রে খবর। আরও এক শ্রমিকও আহত হয়েছেন বলে খবর। ভেঙে পড়া শেডের নীচে বেশ কিছু বাইক এবং সাইকেল চাপা পড়ে থাকতে দেখা গিয়েছে। যদিও তার নীচে আর কেউ আটকে আছে কি না, তা এখনও পরিষ্কার নয়। 

ঘটনার পরেই ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে হাওড়া পুলিশ কমিশনারেটের বাহিনী এবং আরপিএফ। অভিযোগ, উদ্ধারকাজ শুরু করতেও অনেক দেরি হয়। এই অভিযোগে স্টেশনের ইয়ার্ড মাস্টারকেও মারধর করা হয়। বিরাটকার এই কংক্রিটের শেড কীভাবে সরানো হবে, সেই উপায়ই এখন বের করার চেষ্টা চলছে। ক্রেন এনে কংক্রিটের ওই অংশ সরানোর চেষ্টা হবে। পুলিশ কুকুর এনে ধ্বংসস্তূপের নীচে কেউ আটকে আছেন কি না, তাও জানার চেষ্টা চলছে। 

ইতিমধ্যেই ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। কংক্রিটের বিরাট আস্তরণ সরিয়ে ভিতরে কেউ আটকে থাকলে তাঁদেরকে উদ্ধার করাই এখন বড় চ্যালেঞ্জ।