কিছুদিন শান্ত থাকার পরে ফের উত্তপ্ত ভাটপাড়া। সকাল থেকে কাঁকিনাড়ায় রেল অবরোধের পরে থানার সামনেই অবাধে বোমাবাজি শুরু করল দুষ্কৃতীরা। আতঙ্কে বন্ধ হয়ে যায় দোকানপাট, ছোটাছুটি শুরু করেন সাধারণ মানুষ। এমনকী বোমাবাজির সামনে পড়ে এলাকা ছেড়ে  পালাতে হয় পুলিশকেও। 

অভিযোগ শুধু রাস্তায় বোমাবাজি নয়, দুষ্কৃতীদের একটি দল ভাটপাড়া পুরসভার মধ্যে ঢুকে গিয়ে কর্মচারীদের মারধর করে। মহিলা কর্মীদের শ্লীলতাহানিও করা হয় বলে অভিযোগ। থানার সামনে পুরভবনের মধ্যেই আধ ঘণ্টা ধরে তাণ্ডব চালানো হয় বলে অভিযোগ। আতঙ্কে দিশেহারা হয়ে ছুটে পুরসভা থেকে বেরোতে গিয়ে আহত হন শিশু কোলে আসা এক বৃদ্ধা। 

আরও পড়ুন- মাঠের মধ্যে পড়ে ইসরোর যন্ত্র, সাতসকালে চন্দ্রকোনায় বাক্স রহস্য

ভাটপাড়ায় দুষ্কৃতী দাপট বন্ধ করতে পুলিশি নিষ্কৃয়তার অভিযোগ তুলে এ দিন সকাল থেকে কাঁকিনাড়া স্টেশনে অবরোধ শুরু করেন এলাকার বাসিন্দারা। যার জেরে দীর্ঘক্ষণ ব্যাহত হয় শিয়ালদহ মেন শাখার ট্রেন চলাচল। অবরোধকারীদের অভিযোগ, ভাটপাড়ায় মাঝেমধ্যেই বোমাবাজি, গুলি চালানোর ঘটনা ঘটলেও পুলিশ ব্যবস্থা নিচ্ছে না। ফলে, তীব্র আতঙ্কে ব্যাহত হচ্ছে স্বাভাবিক জীবনযাপন। প্রসঙ্গত রবিবারও প্রায় পঞ্চাশটি বোমা উদ্ধার হয় ভাটপাড়া এলাকা থেকে। 

আরও পড়ুন -কাটমানির 'হোম ডেলিভারি', বাড়ি বাড়ি গিয়ে টাকা ফেরত বাঁকুড়ার তৃণমূল নেতার, দেখুন ভিডিও

সাধারণ মানুষের অভিযোগ যে অমূলক নয় তা কিছুক্ষণের মধ্যে প্রমাণ হয়ে যায়। ভাটপাড়া থানার সামনের এলাকাতেই শুরু হয় ব্যাপক বোমাবাজি। গোটা এলাকার বিদ্যুৎ সংযোগও বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ। বোমাবাজির দাপটে এলাকা ছেড়ে চলে আসতে বাধ্য হয় পুলিশও। এখনও এলাকায় পর্যাপ্ত পুলিশ বাহিনী নেই বলেই খবর। ফলে অবাধে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে দুষ্কৃতীরা। তুমুল বোমাবাজির জেরে এলাকায় বন্ধ হয়ে যায় দোকানপাট, বন্ধ হয়ে যায় যান চলাচল। রাস্তার মধ্যেই দাঁড়িয়ে পড়ে বাস, গাড়ি। তীব্র আতঙ্কে ছোটাছুটি শুরু করেন সাধারণ মানুষ। 

কয়েকদিন আগেই অবশ্য ভাটপাড়ায় দুষ্কৃতী দাপট কমাতে কড়া ব্যবস্থা নিয়েছিল পুলিশ। পুলিশের সঙ্গে গুলির লড়াইতে এক দুষ্কৃতীর মৃত্যু হয়। তার পর থেকেই ধীরে ধীরে উত্তপ্ত হচ্ছিল এলাকা।