বাতিল হয়ে গেল ২, ৪ ও ৮ জুলাই-এর নির্ধারিত উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা। এদিন সুপ্রিম কোর্টের পক্ষ থেকে এই বিষয়ে নির্দেশ আসার পরই বিশেষজ্ঞ কমিটি ও উচ্চশিক্ষা পর্যদের সুপারিশ মেনে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ উচ্চশিক্ষা দপ্তর। এমনটাই জানিয়েছেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

তিনি আরও জানান, এই বিষয়গুলির মূল্যায়ন কীভাবে করা হবে তা নিয়ে চিন্তা-ভাবনা করছে উচ্চশিক্ষা পর্ষদ। সেরা তিন নম্বর নিয়ে তার গড় করা হবে, না সেরা তিন বিষয়ের নম্বরই নেওয়া হবে তাই নিয়ে এখনও পুরোপুরি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। আগামী ২-৩ দিনের মধ্যেই এই বিষয়টির মীমাংসা করার জন্য তিনি উচ্চশিক্ষা পর্ষদকে নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে। তারপরেও কোনও শিক্ষার্থীর যদি সেই নম্বর পছন্দ না হয়, তাহলে তারা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ফের পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পাবেন।

তিনি আরও বলেন, উচ্চমাধ্যমিকের ফল ৩১ জুলাই তারিখের মধ্যেই প্রকাশ করার চেষ্টা করা হচ্ছে। সেই ফল প্রকাশের পরই নতুন করে পরীক্ষা দেওয়ার আবেদন করতে হবে। পুরো বিষয়টাই এখনও আলোচনার স্তরে রয়েছে। আগামী কয়েক দিনের মধ্য়েই এই বিষয়ে স্পষ্টতা আসবে।

উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা চলাকালীনই করোনাভাইরাস মহামারি হানা দিয়েছিল। তাই বেশ কয়েকটি বিষয়ের পরীক্ষা বাকি ছিল। লকডাউনের মধ্যে প্রথমে ৩০ জুন, ২ ও ৪ জুলাই এই পরীক্ষা নেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তারপর লকডাউনের সীমা বাড়ায় ৩০ জুনের পরিবর্তে ৮ জুলাই পরীক্ষার দিন নির্ধারণ করা হয়েছিল। কিন্তু, শেষে তাও বাতিল হল।