পশ্চিমবঙ্গের নতুন রাজ্যপাল হচ্ছেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এবং বিজেপি নেতা জগদীপ ধনকর। কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর বদলে এই বিজেপি নেতাকেই বাংলার নতুন রাজ্যপাল হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হল। পশ্চিমবঙ্গ- সহ মোট ছ'টি রাজ্যে নতুন রাজ্যপাল নিয়োগ করা হয়েছে। 

আরও পড়ুন- রাজভবনে সর্বদল বৈঠক! বাংলা নিয়ে খুব চিন্তায় রাজ্য়পাল, দাবি বিজেপির

পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও মধ্যপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, বিহার, নাগাল্যান্ড এবং ত্রিপুরায় রাজ্যপাল বদল করা হয়েছে। এ দিনই নতুন রাজ্যপালদের নিয়োগ নিয়ে রাষ্টপতি ভবনের তরফে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। 

আরও পড়ুন- 'মুম্বইয়ে বার ডান্স করে বাঙালি মেয়েরা', হিন্দির শাগরেদি করে বাণী তথাগতর

পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল হিসেবে যাঁকে দায়িত্ব দেওয়া হয়ছে, সেই জগদীপ ধনকর সুপ্রিম কোর্টের প্রবীণ আইনজীবী। এর পাশাপাশি রাজস্থানের ঝুনিঝুনু কেন্দ্র থেকে জনতা দলের টিকিটে ১৯৮৯ থেকে দু' বছর  সাংসদ ছিলেন তিনি। ওই সময়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভারও সদস্য ছিলেন ধনকর। রাজস্থানের কিষানগড়ের বিধায়কও ছিলেন ধনকর। ২০০৩ সালে কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপি-তে যোগ দেন ধনকর।

রাজ্যপাল হিসেবে বিজেপি নেতার এই নিয়োগ নিয়ে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস কী প্রতিক্রিয়া দেয়, সেটাই এখন দেখার। কারণ কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর নিরপেক্ষতা নিয়েও একাধিকবার প্রশ্ন তুলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে আরও এক বিজেপি নেতাকে এ রাজ্যের রাজ্যপাল পদে নিয়োগকে তাই তাৎপর্য্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। 

গুজরাটের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এবং বর্তমানে মধ্যপ্রদেশের রাজ্যপাল আনন্দীবেন পটেলকে উত্তরপ্রদেশের রাজ্যপাল হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। বিহারের রাজ্যপাল লালজি ট্যান্ডনকে মধ্যপ্রদেশের রাজ্যপাল হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। ফাগু চৌহানকে বিহারের নতুন রাজ্যপাল করা হয়েছে এবং নাগাল্যান্ডের রাজ্যপাল হিসেবে দায়িত্বে পেয়েছেন আর এন রবি। ত্রিপুরার নতুন রাজ্যপাল হলেন বিজেপি নেতা রমেশ ব্যাস।