নিমতায় দেবাঞ্জন দাস হত্যাকাণ্ডের কিনারা করে ফেলল পুলিশ। ঘটনায় মূল অভিযুক্ত হিসেবে উঠে এসেছে প্রিন্স সিং নামে এক যুবকের নাম। ঘটনায় ইতিমধ্যেই প্রিন্স সিংয়ের ঘনিষ্ঠ বিশাল মারু নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবারই বিশাল মারুকে আটক করেছিল পুলিশ। ধৃতকে জেরা করেই প্রিন্স সিং নামে যুবকের খোঁজ চালানোর চেষ্টা করছেন তদন্তকারীরা। 

পুলিশ সূত্রে খবর, প্রিন্স সিং নামে ওই যুবক আসলে নিহত দেবাঞ্জনের বান্ধবীর প্রাক্তন প্রেমিক। প্রিন্সই দেবাঞ্জনকে খুন করেছে বলে প্রাথমিকভাবে অনুমান পুলিশের। দেবাঞ্জনের মোবাইল ফোনের সূত্রেই ত্রিকোণ প্রেমের ঘটনার ইঙ্গিত পায় পুলিশ। অভিযুক্ত প্রিন্স সিং নামে যুবক বিহারে পালিয়ে যেতে পারে বলে সন্দেহ তদন্তকারীদের। সেখানে তার বেশ কিছু আত্মীয়ের খোঁজ মিলেছে। প্রয়োজনে প্রিন্সের খোঁজে ভিনরাজ্যে যেতে পারে নিমতা থানার তদন্তকারী পুলিশের দল। 

দেবাঞ্জনের পরিবারের পক্ষ থেকে যে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল, তাতেও নাম ছিল বিশাল মারুর। বিশালকে জেরা করে পুলিশ জানতে পেরেছে, প্রিন্সই দেবাঞ্জনকে গুলি করে হত্যা করে। খুনের পরে প্রিন্সকে বিশাল একদিন নিজের বাড়িতেও থাকতে দিয়েছিল বলে জানতে পেরেছে পুলিশ। হত্যাকাণ্ডের পরে বেশ কয়েকবার প্রিন্স এই বিশাল মারুর সঙ্গে ফোনে কথা বলে বলেও জানতে পেরেছে পুলিশ।