পুরুলিয়া শহরের প্রকাশ্যে শুট আউট। গুলিবিদ্ধ শাসক দলের নেতা। শনিবার রাত ৯টা নাগাদ, পুরুলিয়া শহরের বড় হাটের মোড় থেকে কেতিকার বাড়িতে ফেরার পথে, পুরুলিয়া পৌরসভার ৯ নম্বর  ওয়ার্ডের প্রাক্তন কাউন্সিলার প্রদীপ বন্দ্যোধ্যায়কে লক্ষ্য করে গুলি চালালো দুষ্কৃতীরা, এমনটাই জানিয়েছে পুলিশ। গুলি, তৃণমূল নেতার পেটে  লেগেছে। তাঁকে দেবেন মাহাতো গভর্নমেন্ট মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হসপিটালে ভর্তি করা হয়েছে। গুলিটি বার করার চেষ্টা করছেন চিকিৎসকরা।

ঘটনাস্থলে তদন্তে গিয়ে গুলির খোল পাওয়া গিয়েছে বলে জানিয়েছে পুরুলিয়া সদর থানার পুলিশ। তারা আরও জানিয়েছে, খুব কাছ থেকে গুলি চালিয়েছিল দুষ্কৃতীরা। তবে প্রদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর প্রাণঘাতী হামলা এই প্রথম নয়। কয়েকমাস আগেও তাঁর কেতিকার বাড়ির কাছেই তাঁকে পিস্তল দেখিয়ে খুন করার হুমকি দেওয়া হয়েছিল। সেবার কোনওক্রমে প্রাণে বেঁচে গিয়েছিলেন তিনি। এবারেও প্রাণের ঝুঁকি কম বলেই জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। তবে গুলিটি পেট থেকে বের করা জরুরি।

পর পর কেন এই তৃণমূল নেতার উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে তাই নিয়ে ধন্দে পুলিশ। তবে এই হামলার পিছনে রাজনৈতিক কোনও স্বার্থ জড়িয়ে আছে বলেই প্রাথমিকভাবে তাদের অনুমান। কিছুদিন আগেই প্রদীপ বিজেপি ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করেছেন। একসময়, পুরুলিয়া পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার থেকে তিনি কাউন্সিলার নির্বাচিত হয়েছিলেন কংগ্রেসের টিকিটে। পরে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন। বিধানসভা নির্বাচনের কয়েক মাস আগে আবার তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন প্রদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু, গেরুয়া শিবিরেও বেশিদিন টিকতে পারেননি। গত ২৬ জুন তারিখে তিনি প্রায় শতাধিক বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন।