ভেঙে পড়ল নির্মীয়মাণ ফরাক্কা ব্যারেজে নির্মীয়মাণ সেতুর একাংশ। যার জেরে মৃত্যু হল দু' জন  শ্রমিকের। এছা়ড়াও সাত থেকে দশজন শ্রমিক গুরুতর আহত হয়েছেন বলে খবর। ভেঙে পড়া গার্ডার-এর নীচে এক শ্রমিক এখনও চাপা পড়ে রয়েছেন বলে খবর। এঁরা প্রত্যেকেই সেতু নির্মাণের দায়িত্বপ্রাপ্ত বেসরকারি সংস্থার কর্মী। 

ফরাক্কার বিধায়ক মইনুল জানিয়েছেন, তিনি জানান, প্রায় দেড় বছর আগে সেতু নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছিল। এ দিন রাত ন'টা নাগাদ দু'টি স্তম্ভের উপরে একটি স্টিলের গার্ডার বসানোর সময়ই সেটি কোনওভাবে পিছলে যায়। যার ফলে ঘটে যায় ভয়াবহ দুর্ঘটনা। যে জায়গায় এই দুর্ঘটনা ঘটে সেটি মালদহের বৈষ্ণবনগর থানা এলাকার মধ্যে পড়ে। 

আহত শ্রমিকদের উদ্ধার করে মালদহ মেডিক্যাল কলেজ  হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। গার্ডারের নীচে চাপা পড়া শ্রমিককেও উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। ইতিমধ্যেই প্রশাসনের তরফে ঘটনাস্থলে উদ্ধারকারী দলকে পাঠানো হয়েছে। দুর্ঘটনার সময় ঘটনাস্থলে চল্লিশজন মতো শ্রমিক কাজ করছিলেন বলে জানা গিয়েছে। নির্মাণকারী সংস্থার আধিকারিকরা অবশ্য পুলিশকে জানিয়েছে, ঘটনাস্থলে ৯ থেকে ১০ জন শ্রমিক উপস্থিত ছিলেন। 

গঙ্গার উপরে মালদহ এবং মুর্শিদাবাদের সংযোগকারী এই সেতু তৈরির কাজ দ্রুত গতিতেই চলছিল বলে জানিয়েছেন মালদহের কংগ্রেস বিধায়ক। কাজের মান নিয়েও সন্তোষ প্রকাশ করেন তিনি। তার পরেও কীভাবে এত বড় দুর্ঘটনা ঘটে গেল, তা নিয়েই প্রশ্ন তুলছেন স্থানীয়রা। কীভাবে দুর্ঘটনা ঘটল, তা জানতে তদন্ত হবে বলে জানিয়েছে জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ। তবে কোনও যান্ত্রিক ত্রুটি ছিল না বলেই দাবি করেছে জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ।