টলিপাড়ার অন্দরে কান পাতলেই মিমির প্রেমের গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। কেমন বর চাই সাংসদ অভিনেত্রীর তা অনেকটাই সকলের জানা রচনা ব্যানার্জির টক শো দিদি নম্বর ১-এর দৌলতে। বর হতে হবে বাঙালি আবার ইন্টারন্যাশনাল লুকও থাকতে হবে। মিমির ব্যক্তিগত জীবনের পর্দাফাঁস করেছেন অভিনেত্রীর বনুয়া নুসরত জাহান। প্রেমের সত্যতা যাই হোক না কেন বিয়ে হতে ঢের দেরি। এই লাইফটা চুটিয়ে উপভোগ করতে চান সাংসদ অভিনেত্রী।  তবে বিয়ের আগের  সন্তানের জন্মদিন পালন করে একপ্রকার সবাইকে চমকে দিলেন সাংসদ অভিনেত্রী।

আরও পড়ুন-'লেসবিয়ান' নাকি মালাইকা, চুমু খেতে করিনার গায়ে উঠে এ কী করছেন বলি 'ফ্যাশনিস্তা'...

বিয়ে হয়নি অথচ সন্তান। বিষয়টা যেন একটু গোলমাল। আসলে মিমির কাছে ভালবাসার ঠিকানাই হল তার দুই সন্তান। কাজ, ডিপ্রেশন , ভাললাগার মুহূর্ত সবটাই নির্ধিদ্বায় এদের সঙ্গে শেয়ার করেন সাংসদ অভিনেত্রী। চিকো এবং ম্যাক্সোই হল তার দুই নয়নের মণি। গতকালই ম্যাক্সোর চতুর্থ বার্থডে সেলিব্রেশন করেছেন মিমি। নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেলের বার্থডে ভিডিও শেয়ার করে মিমি লিখেছেন, 'শুভ চতুর্থ জন্মদিন সোনা, মাম্মা তোমাকে অনেক ভালবাসে'। ছেলেকে আদরে ভরিয়ে দিয়েছেন 'সেক্সি মাম্মা'।

 

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

A post shared by Mimi (@mimichakraborty)

 

কালো প্যান্ট, হালকা পেয়াজি রঙের টি-শার্ট নো মেক আপ লুকেই ভাইরাল অভিনেত্রী মিমি। ম্যাক্সোকেও সুন্দর করে সাজিয়ে তুলেছিলেন মিমি। ছেলের গলায় নীল রঙের বো বাঁধা, যেখানে লেখা আমার জন্মদিন। ম্যাক্সোর জন্মদিনের কেককাটার মুহূর্ত সকলের সঙ্গে শেয়ার করেছেন মিমি। ম্যাক্সোর জন্মদিনে শুভেচ্ছা আদরে ভরিয়ে দিয়েছেন, ঋতাভরী, পার্ণো, অনিন্দ, ঐন্দ্রিলা সহ আরও অনেকেই। ম্যাক্সো রীতিমতো নেটদুনিয়ার হট সেনসেশন হয়ে উঠেছেন। এমনকী যাদের জন্য মিমি একটি ইনস্টা পেজও খুলে রেখেছেন। যার নাম 'চিকোম্যাক্স অ্যান্ড মাম্মি'।

 

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

A post shared by Mimi (@mimichakraborty)

 

বিবাহ গুঞ্জনের মধ্যে ফের ছেলেকে নিয়ে চর্চায় উঠে এসেছেন মিমি চক্রবর্তী। নেটিজেনরা অনেকেই মিমির এই ভিডিওতে অশ্লীল কমেন্টও করেছেন। যদিও তাতে স্পিকটি নট অভিনেত্রী। আপাতত ইন্টারন্যাশনাল লুকের বাঙালি বর খুঁজছেন মিমি-নুসরত। যদি নুসরতের এই মন্তব্যেই মিমির বিশেষ বন্ধু মিলির কথা মনে পড়ে যাচ্ছে সাইবারবাসীর। তবে কি মিলির সঙ্গে সাতপাকে বাঁধা পড়ছেন মিলি, জল্পনা বাড়ছে টলিপাড়ার অন্দরে।