দ্বৈপায়ন লালা, মালদহ: দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিতে গিয়ে ঘটল বিপত্তি। এবার করোনায় থাবা গনি খানের পরিবারেও। আক্রান্ত হলেন প্রয়াত কংগ্রেস নেতা ভাই তথা সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরী। কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি তিনি। বিবৃতি দিয়ে বাবার অসুস্থতা কথা জানিয়েছেন সাংসদ পুত্র ইশা খান চৌধুরী।

আরও পড়ুন: ভরসন্ধ্য়ায় যুবতীর শ্লীলতাহানি বেলুড়ে,রাজ্য়ে মহিলাদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন

জেলার প্রবীণ কংগ্রেস নেতা, মালদহের দক্ষিণ কেন্দ্রের সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরী।  দিন কয়েক আগে দলের কর্মসূচি যোগ দিতে কলকাতায় যান তিনি। সেখানে থাকাকালীন আচমকাই শ্বাসকষ্ট শুরু হয় তাঁর। ক্রমে শারীরিক অবস্থা অবনতি হতে থাকে। সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়তে শ্বাসকষ্টের মাত্রাও। তড়িঘড়ি সাংসদকে ভর্তি করা শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে। করোনা নয় তো? রোগীর লালারস পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষায় পজিটিভি রিপোর্ট এসেছে। বয়সজনিত কারণে আর ঝুঁকি নেননি চিকিৎসকরা, সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরীকে ভর্তি করা হয়েছে আইসিইউসি-তে। তবে তাঁর শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল বলে  জানা গিয়েছে। 

আরও পড়ুন: নজরে বিধানসভা ভোট, উত্তরবঙ্গে নির্বাচনী লড়াই-এ নামছে কামতাপুর পিপলস পার্টি

এদিকে দলে বর্ষীয়ান নেতার করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবরে উদ্বিগ্ন মালদহ জেলার কংগ্রেস কর্মীরা। আবু হাসেম খান চৌধুরীর ছেলে ইশা খান চৌধুরী সুজাপুরের কংগ্রেস বিধায়ক।  গত কয়েক দিনে যাঁরা তাঁর বাবা সংস্পর্শে এসেছেন, তাঁদের সতর্ক থাকার ও প্রয়োজনী ব্যবস্থা নেওয়ার পরামর্শ দিয়ে বিবৃতি জারি করেছেন সাংসদ পুত্র। উল্লেখ্য, মালদহে কিন্তু ফের নতুন করে করোনা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে সংক্রমণ ধরা পড়েছে ১২৬ জনের। উদ্বেগ বাড়ছে প্রশাসনের।