মঙ্গলবার বিশ্বকাপ ২০১৯-এর সপ্তম ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে দুই এশিয় দল আফগানিস্তান ও শ্রীলঙ্কা। দুটি দলই বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে পরাজিত হয়েছে। শ্রীলঙ্কা তো একেবারে নাস্তানাবুদ হয়েছে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে। অপরদিকে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ব্য়াটিং ব্যর্থতায় ডুবেছে আফগানিস্তানও। বছর চারেক আগেও এই ম্যাচের পরিষ্কার ফেবারিট ছিল শ্রীলঙ্কা। মঙ্গলবারের ম্যাচে কিন্তু আফগানদেরই এগিয়ে রাখা হচ্ছে।

গত শনিবার অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং তিন বিভাগেই পরযুদস্ত হয়েছে শ্রীলঙ্কা। একমাত্র শ্রীলঙ্কান অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে ব্য়াট থেকে অপরাজিত ৫২ রানের ইনিংস এসেছে। আর একজন ব্য়াটসম্যানও তাঁকে সঙ্গ দিতে পারেননি। ফলে ১৩৬-এর বেশি এগোয়নি তাদের ইনিংস।

হাতে অতি অল্প রানের পুঁজি থাকলেও অল্প রানের ম্য়াচে প্রথম দিকে দ্রুত কিছু উইকেট ফেলতে পারলে প্রতিপক্ষের উপর চাপ সৃষ্টি হয়। লাসিথ মালিঙ্গার নেতৃত্বাধীন শ্রীলঙ্কা বোলিং কিন্তু কিউইদের সামান্যতম সমস্য়াতেও ফেলতে পারেনি। না পেরেছে উইকেট ফেলতে,না পেরেছে রানের গতি আটকাতে। একটিও উইকেট না হারিয়ে ১৬ ওভারেই জয়ের রান তুলে ফেলে নিউজিল্যান্ড।

আর এটা কোনও ব্যতিক্রমী দিন নয়।  শ্রীলঙ্কা ব্যাটিং কিন্তু একটি গা-ঘামানো ম্যাচেও পুরো ৫০ ওভার টিকতে পারেনি। আফগান বোলিং আক্রমণ কিন্তু এই বিশ্বকাপের অন্যতম সেরা। কাজেই তাদের বিরুদ্ধেও কড়া চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে করুনারত্নেদের। আর তার জন্য অভিজ্ঞ অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজের কাছ থেকে অনেক বড় অবদান আশা করছে শ্রীলঙ্কা শিবির। সেই সঙ্গে অধিনায়ক চাইছেন বোলাররা অন্তত ইংরেজ আবহাওয়ার ফায়দা তুলুক।

ইংল্যান্ডের মাঠে ব্যাটিং বিভাগ কিছুটা হলেও কিন্তু চিন্তায় রেখেছে আফগানিস্তানকে। প্রস্তুতি ম্যাচ থেকেই দেখা গিয়েছে বল নড়াচড়া করলে কিন্তু আফগান ব্যাটসম্য়ানদের অনভিজ্ঞতা ধরা পড়ে যাচ্ছে। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সকাবের ইংরেজ আবহাওয়ায় তাঁদের দুই ওপেনারই শূন্য রানে আউট হয়েছিলেন। তবে অতীতে এঁরাই ম্যাচ জিতিয়েছেন। তাই দ্রুতই মানিয়ে নিতে পারবেন বলে মনে করছে আফগান দল।
 
প্রথম ম্য়াচ হারতে হলেও আফগান লোয়ার অর্ডার বেশ ভাল খেলেছিল। নাজিবুল্লা অর্ধশতরান করেন। ঝোড়ো ইনিংস খেলেন রশিদ খানও। তবে রোজ রোজ লোয়ার অর্ডারের উপর ভরসা করা যায় না। তাই অধিনায়ক গুলবদিন নইব আশা করছেন এই ম্যাচেই তাদের টপ অর্ডার রানে ফিরবে।

বোলিং বিভাগে আফগান স্পিনাররা তো আছেনই, অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে মোঘাচ্ছন্ন পরিবেশের ফায়দা তুলেছেন জোরো বোলার হামিদ হাসানও। তবে শ্রীলঙ্কার বর্তমান দলে বাঁহাতি ব্য়াটারের সংখ্যা বেশি হওয়ায় অফস্পিনার মহম্মদ নবি এই ম্যাচে বড় ভূমিকা নিতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে। নবির কাছ থেকে ব্যাটেও বড় রানের আশা রয়েছে।

দুই দলের স্কোয়াড

আফগানিস্তান: গুলবদিন নইব (অধিনায়ক), মহম্মদ শাহজাদ (উইকেটরক্ষক) নুর আলি জাদরান, হজরতউল্লা জাজাই, রহমত শাহ, আসগর আফগান, হাশমতাউল্লা শহিদি, নাজিবুল্লা জাদরান, সামিউল্লাহ শিনওয়ারি, মহম্মদ নবি, রশিদ খান, দৌলত জাদরান, আফতাব আলম, হামিদ হাসান , মুজিব উর রহমান।

শ্রীলঙ্কা: দিমুথ করুনারত্নে (অধিনায়ক), আবিষ্কা ফার্নান্ডো, সুরঙ্গ লাকমল, লাসিথ মালিঙ্গা, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস, জীবন মেন্ডিস, কুশল মেন্ডিস (উইকেটরক্ষক), কুশল পেরেরা (উইকেটরক্ষক), থিসারা পেরেরা, নুয়ান প্রদীপ, ধনঞ্জয় ডিসিলভা, মিলিন্দা সিরিবর্ধন, লাহিরু থিরিমানে, ইসুরু উদানা, জেফ্রে ভাণ্ডেরসে।