111

১৫ নভেম্বর, বাঙালির কাছে এক মন ভাঙা সকাল, সকলকে ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন এদিন বাংলার কিংবদন্তী শিল্পী সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় (Soumitra Chatterjeee)। একাধারে তিনি বাচিক শিল্পী, লেখক, পাশাপাশি তিনি সকলের মন জয় করেছেন তাঁর অন্যবদ্য অভিনয়গুণে। টলিউডের (Tollywood) তাঁর অবদান স্বর্ণাক্ষরে খচিত। 

Subscribe to get breaking news alerts

211

বয়সের সঙ্গে সঙ্গে নিজেকে ভেঙে গড়েছেন তিনি বারে বারে। শেষ পর্যায়ও লাইট ক্যামেরা অ্যাকশন কিংবা থিয়েটরের নেশা তাঁক ছুটি দিতে ছিল নারাজ। একদিকে যেমন সাত পাকে বাঁধার মত পারিবারিক ছবি করেছিলেন, ঠিক সেই মানুষটিই সত্যজিৎ রায়ের (Styajit Roy) হাতে পড়ে অন্য রূপে ফ্রেমবন্দি। 

311

ফেলুদাঃ সত্যজিৎ রায় সৃষ্ট এই চরিত্র বাংলার অন্যতম গোয়েন্দা। ৫০ বছর আগে তাঁর সৃষ্টি। তিনি নিজেই পরিচালনা করে পর্দায় তুলে ধরেছিলেন সোনার কেল্লা। সালটা ১৯৭৪। এই চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, পরবর্তীতে সব্যসাচী চক্রবর্তী ও আবির চট্টোপাধ্যায়।

411

তিনকন্যাঃ তিনকন্যার শেষ ছবি সমাপ্তিতে প্রথম অপর্না সেন ও সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় অভিনয় করেছিলেন। ১৯৬১ সালে মুক্তি পেয়েছিল এই ছবি।

511

দেবীঃ শর্মিলা ঠাকুরের সঙ্গে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের এটি দ্বিতীয় ছবি। মুক্তি পেয়েছিল ১৯৬০ সালে। চরিত্রের নাম ছিল উমাপ্রসাদ।

611

অভিযানঃ ওয়েদা রহমান, রুমা গুহ ঠাকুরতার সঙ্গে এই ছবিতে পাঠ করেছিলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। ছবিটি মুক্তি পেয়েছিল ১৯৬২ সালে।

711

চারুলতাঃ চারুলতা ছবিতে মাধবী মুখোপাধ্যায়ের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। এই ছবি সম্পূর্ণটাই শ্যুট করেছিলেন পরিচালক বাড়িতেই।

811

কাপুরুষঃ এই ছবি মুক্তি পেয়েছিল ১৯৬৫ সালে। এখানেও সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন মাধবী মুখোপাধ্যায়।

911

অরণ্যের দিনরাত্রীঃ ১৯৭০ সালে মুক্তি পেয়েছিল এই ছবি। এখানে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, মাধবী মুখোপাধ্যায় ও শর্মিলা ঠাকুর একই সঙ্গে অভিনয় করেছিলেন।

1011

ঘরে বাইরেঃ ভিক্টর বন্দ্যোপাধ্যা, স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত অভিনীত এই ছবি মুক্তি পেয়েছিল ১৯৮৪ সালে। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের পাঠ ছিল ছবিতে নজর কাড়া।

1111

অশনি সংকেতঃ এ এক অনবদ্য ছবি। ১৯৭৩ সালে তৈরি এই ছবি আজও টলিউডের সম্পদ। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে এই ছবিতে এক অন্য লুকে পেয়েছিলেন দর্শকেরা।