আশার আলো দেখাল রাশিয়ার করোনা প্রতিষেধক স্পুটনিক-ভি, জানিয়েছে ল্যানসেট

First Published 4, Sep 2020, 7:23 PM


রাশিয়ার করোনাভাইরাস প্রতিষেধ স্পুটনিক-ভি নিয়ে রীতিমত সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল ভ্লাদিমির পুতিনকে। কিন্তু মেডিক্যাল জার্নাল ল্যানসেটের প্রকাশিত পরীক্ষার রীপোর্ট কার্ড অনুযায়ী রীতিমত লেটার মার্কস নিয়ে পাশ করেছেন পুতিন ও তাঁর দেশের বিজ্ঞানীরা। ল্যানসেটে প্রকাশিত রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে করোনাভাইরাস সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতি স্পুটনিক-ভি রীতিমত নিরাপদ। অ্যান্টিবডি তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে। 

<p><strong>লেনসেট মেডিক্যাল জার্নালে বলা হয়েছে চলচি বছর জুন ও জুলাই মাসে ক্লিনিক্যাল ট্রায়লে ৭৬ জন অংশগ্রহণকারীকে দুবার পরীক্ষা করা হয়েছে। আর সেই পরীক্ষার ফল অনুযায়ী দেখা গেছে ৭৬ জনের দেহেই করোনা প্রতিরোধে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে। <br />
.</strong></p>

লেনসেট মেডিক্যাল জার্নালে বলা হয়েছে চলচি বছর জুন ও জুলাই মাসে ক্লিনিক্যাল ট্রায়লে ৭৬ জন অংশগ্রহণকারীকে দুবার পরীক্ষা করা হয়েছে। আর সেই পরীক্ষার ফল অনুযায়ী দেখা গেছে ৭৬ জনের দেহেই করোনা প্রতিরোধে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে। 
.

<p><strong>অ্যান্টিবডি তৈরি হওয়ার পাশাপরাশি ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে কোনও রকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি। </strong></p>

অ্যান্টিবডি তৈরি হওয়ার পাশাপরাশি ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে কোনও রকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি। 

<p style="text-align: justify;">করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক তৈরির দাবিবার হিসেবে রাশিয়ার নাম প্রথমে ব্যবহার করা যেতে পারে। কারণ এই দেশটির আগে আর কোনও দেশই প্রতিষেধক তৈরির দাবি জানায়নি। </p>

করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক তৈরির দাবিবার হিসেবে রাশিয়ার নাম প্রথমে ব্যবহার করা যেতে পারে। কারণ এই দেশটির আগে আর কোনও দেশই প্রতিষেধক তৈরির দাবি জানায়নি। 

<p><strong>৪২ দিন ধরে চলা ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে ৩৮ জন প্রাপ্তবয়স্ক সুস্বাস্থ্য়ের অধিকারি এমন স্বেচ্ছাসেবীদের পরীক্ষা করা হয়েছে। তাদের মধ্যে বিরুপ কোনও প্রতিক্রিয়া ধরা পড়েনি। স্বেচ্ছাসেবীদের মধ্যে অ্যান্টিবডি তৈরির লক্ষণ স্পষ্ট হয়েছে বলেও দাবি করা হয়েছে। </strong></p>

৪২ দিন ধরে চলা ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে ৩৮ জন প্রাপ্তবয়স্ক সুস্বাস্থ্য়ের অধিকারি এমন স্বেচ্ছাসেবীদের পরীক্ষা করা হয়েছে। তাদের মধ্যে বিরুপ কোনও প্রতিক্রিয়া ধরা পড়েনি। স্বেচ্ছাসেবীদের মধ্যে অ্যান্টিবডি তৈরির লক্ষণ স্পষ্ট হয়েছে বলেও দাবি করা হয়েছে। 

<p><strong>মেডিক্যাল জার্নালে বলা হয়েছে, সংক্রমণ প্রতিরোধে প্রতিষেধকের দীর্ঘমেয়াদী সুরক্ষা ও কার্যকারিতা গ্রহণের জন্য আরও ট্রায়াল ও পর্যবেক্ষণের প্রয়োজন রয়েছে। </strong></p>

মেডিক্যাল জার্নালে বলা হয়েছে, সংক্রমণ প্রতিরোধে প্রতিষেধকের দীর্ঘমেয়াদী সুরক্ষা ও কার্যকারিতা গ্রহণের জন্য আরও ট্রায়াল ও পর্যবেক্ষণের প্রয়োজন রয়েছে। 

<p><strong> সোভিয়েত ইউনিয়ন প্রথম যে উপগ্রহ পাঠিয়েছিল সেই কথা স্মরণ করেই প্রতিষেধকের নাম রাখা হয়েছিল স্পুটনিক-ভি। তবে রাশিয়ার তৈরির প্রতিশেধক নিয়ে বিশেষজ্ঞরা এখনও দ্বিধায় রয়েছেন বলেও জানিয়েছে। </strong></p>

 সোভিয়েত ইউনিয়ন প্রথম যে উপগ্রহ পাঠিয়েছিল সেই কথা স্মরণ করেই প্রতিষেধকের নাম রাখা হয়েছিল স্পুটনিক-ভি। তবে রাশিয়ার তৈরির প্রতিশেধক নিয়ে বিশেষজ্ঞরা এখনও দ্বিধায় রয়েছেন বলেও জানিয়েছে। 

<p><strong>তবে রাশিয়ার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে তারা সব সমালোচনা জাবাব দিতে সক্ষম হয়েছেন। </strong><br />
 </p>

তবে রাশিয়ার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে তারা সব সমালোচনা জাবাব দিতে সক্ষম হয়েছেন। 
 

<p><strong>রাশিয়ার পক্ষ থেকে আরও জানান হয়েছে, গত সপ্তাহে চালু হওয়া বৃহত্তর ক্লিনিক্যাল ট্রায়ের জন্য ৩হাজার মানুষকে নিয়োগ করা হয়েছে। আগামী অক্টোবর অথবা নভেম্বরেই প্রকাশিত হবে প্রাথমিক ফলাফল। </strong></p>

রাশিয়ার পক্ষ থেকে আরও জানান হয়েছে, গত সপ্তাহে চালু হওয়া বৃহত্তর ক্লিনিক্যাল ট্রায়ের জন্য ৩হাজার মানুষকে নিয়োগ করা হয়েছে। আগামী অক্টোবর অথবা নভেম্বরেই প্রকাশিত হবে প্রাথমিক ফলাফল। 

<p><strong>মস্কোর গামালিয়া ইনস্টিটিউটের তৈরি করোনাভাইরাস প্রতিষেধ স্পুটনিক -ভি মূলত দুটি ডোজ প্রয়োগ করা হয়েছে। গামালিয়ার ভ্যাক্সিনের অন্যতম প্রস্তুতকারক সংস্থা জেনিস লোগুনভের পক্ষ থেকে জানান হয়েছে জনগণের সুরক্ষার সঙ্গে তারা কোনও রকম সমঝতা করবে না।  </strong></p>

মস্কোর গামালিয়া ইনস্টিটিউটের তৈরি করোনাভাইরাস প্রতিষেধ স্পুটনিক -ভি মূলত দুটি ডোজ প্রয়োগ করা হয়েছে। গামালিয়ার ভ্যাক্সিনের অন্যতম প্রস্তুতকারক সংস্থা জেনিস লোগুনভের পক্ষ থেকে জানান হয়েছে জনগণের সুরক্ষার সঙ্গে তারা কোনও রকম সমঝতা করবে না।  

<p><strong>রাশিয়া ছাড়াও আরও বেশ কয়েকটি দেশ মহামারির হাত থেকে পুরোপুরি নিস্তার পেতে করোনাভাইরাসের প্রতিষেধকের খোঁজ চালাচ্ছে। যার মধ্যে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন চিন ও ভারতের নাম। </strong></p>

রাশিয়া ছাড়াও আরও বেশ কয়েকটি দেশ মহামারির হাত থেকে পুরোপুরি নিস্তার পেতে করোনাভাইরাসের প্রতিষেধকের খোঁজ চালাচ্ছে। যার মধ্যে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন চিন ও ভারতের নাম। 

loader