কালীমাতার দর্শনে চড়তে হবে পাহাড়, ১২০টি সিঁড়ি বেয়ে মা কালীর দর্শন পুরুলিয়ায়

First Published 12, Nov 2020, 6:37 PM

পুরুলিয়ার ঝালদার শীলফোড় পাহাড়ে কালী মাতার দর্শনে চড়তে হবে পাহাড়। ১২০টি সিঁড়ি বেয়ে কালী মাতার দর্শন করতে পাহাড় চড়তে হয় দর্শনার্থীদের। শতাব্দী প্রাচীন এই পুজোর সূচনা করেছিলেন এক সাধু। ঘটপুজোর মাধ্যমে প্রথম কালী পুজোর প্রচলন করেন। বর্তমানে ঝালদা পুরসভার উদ্যোগে সৌন্দার্যায়নের কাজ চলছে। পুজো সার্বজনীন হওয়ায় সহযোগিতা রয়েছে ঝালদা থানা ও পুরসভার। 

<p style="text-align: justify;">প্রায় দুশো বছর আগে সাধুর হাত ধরে কালীপুজোর প্রচলন শুরু হয়েছিল পুরুলিয়ার শিলফোড় পাহাড়ে। পরবর্তীকালে ঝালদার বাসিন্দা প্রেমচাঁদ মোদকের সহায়তায় কালী মন্দির নির্মাণ হয়েছিল। পরবর্তীকালে মন্দিরের সৌন্দার্যায়নের ব্যবস্থা করেন তৎকালীন কংগ্রেস সাংসদ দেবেন মাহাতো।</p>

প্রায় দুশো বছর আগে সাধুর হাত ধরে কালীপুজোর প্রচলন শুরু হয়েছিল পুরুলিয়ার শিলফোড় পাহাড়ে। পরবর্তীকালে ঝালদার বাসিন্দা প্রেমচাঁদ মোদকের সহায়তায় কালী মন্দির নির্মাণ হয়েছিল। পরবর্তীকালে মন্দিরের সৌন্দার্যায়নের ব্যবস্থা করেন তৎকালীন কংগ্রেস সাংসদ দেবেন মাহাতো।

<p style="text-align: justify;"><br />
পরবর্তীকালে তৎকালীন পুরপ্রধান প্রহ্লাদ শর্মার সহযোগিতায় মন্দিরে ওঠার জন্য নির্মিত ১০৮টি সিঁড়ি। বর্তমানে তার সংখ্যা বেড়ে ১২০টি হয়েছে। এখন ঝালদা পুরসভার উদ্যোগে নতুন করে চলছে সৌন্দার্যায়নের কাজ।</p>


পরবর্তীকালে তৎকালীন পুরপ্রধান প্রহ্লাদ শর্মার সহযোগিতায় মন্দিরে ওঠার জন্য নির্মিত ১০৮টি সিঁড়ি। বর্তমানে তার সংখ্যা বেড়ে ১২০টি হয়েছে। এখন ঝালদা পুরসভার উদ্যোগে নতুন করে চলছে সৌন্দার্যায়নের কাজ।

<p style="text-align: justify;"><br />
স্থানীয় বাসিন্দা বলরাম মণ্ডল জানান, ঝালদা শহর লাগোয়া শীলফোড় পাহাড়ের পুজো বহু প্রাচীন। এই পাহাড়ে চড়লে কালীমাতার দর্শনের পাশাপাশি পাহাড় থেকে গোটা ঝালদা শহরটাই দেখা যায়।</p>


স্থানীয় বাসিন্দা বলরাম মণ্ডল জানান, ঝালদা শহর লাগোয়া শীলফোড় পাহাড়ের পুজো বহু প্রাচীন। এই পাহাড়ে চড়লে কালীমাতার দর্শনের পাশাপাশি পাহাড় থেকে গোটা ঝালদা শহরটাই দেখা যায়।

<p>শুধু কালী মন্দির নয়, পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে বিশেষ জনপ্রিয়তা রয়েছে এই শীলফোড় পাহাড়ের। কালী মাতার দর্শনের পাশাপাশি এলাকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করেন পর্যটকরা।</p>

শুধু কালী মন্দির নয়, পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে বিশেষ জনপ্রিয়তা রয়েছে এই শীলফোড় পাহাড়ের। কালী মাতার দর্শনের পাশাপাশি এলাকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করেন পর্যটকরা।

<p style="text-align: justify;">শীলফোড় পাহাড়ের কালীমাতার পুজো সর্বজনীন। মন্দির রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে রয়েছে ঝালদা পুরসভা। পাশাপাশি, ঝালদা থানার সহযোগিতাও রয়েছে এই মন্দিরের রক্ষণাবেক্ষণে।</p>

শীলফোড় পাহাড়ের কালীমাতার পুজো সর্বজনীন। মন্দির রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে রয়েছে ঝালদা পুরসভা। পাশাপাশি, ঝালদা থানার সহযোগিতাও রয়েছে এই মন্দিরের রক্ষণাবেক্ষণে।

<p><br />
প্রতিবছর ধুমধাম করে পুজো হয় এই শীলফোড় পাহাড়ের কালীমাতার। তবে এবছর করোনা আবহে সামাজিক দূরত্ব বিধি মেনে পুজোর আয়োজন করা হয়েছে। করোনা সুরক্ষা বিধি মানতে প্রশাসনের তরফেও বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।</p>


প্রতিবছর ধুমধাম করে পুজো হয় এই শীলফোড় পাহাড়ের কালীমাতার। তবে এবছর করোনা আবহে সামাজিক দূরত্ব বিধি মেনে পুজোর আয়োজন করা হয়েছে। করোনা সুরক্ষা বিধি মানতে প্রশাসনের তরফেও বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।