বৃহস্পতিবারই অযোধ্যা মামলায় তিন মধ্যস্থতাকারীর প্যানেলের তরফে একটি রিপোর্ট সুপ্রিম কোর্টে পেশ করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছিল। সূত্রের খবর, মধ্যস্থতার প্রক্রিয়া ঐক্যমতে উপনীত হতে ব্যর্থ হয়েছে। মধ্যস্থতার প্রশ্নে তিন মধ্যস্থতাকারীর ওই প্যানেলের পক্ষ থেকে কোনও সমাধানসূত্র বের করা সম্ভব হয়নি বলেই জানা গিয়েছে। আর সেই কারণে রাম জন্মভূমি-বাবরি মসজিদ বিতর্ক মামলায় আগামী ৬ অগাস্ট থেকে দৈনিক শুনানির নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। 

এদিন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বে এসএ বোবদে, ডিওয়াই চন্দ্রচূড়, অশোক ভূষণ এবং এস আবদুল নাজির-এর পাঁচ সদস্যের একটি বেঞ্চ জানিয়েছে, আগামী ৬ অগাস্ট থেকে প্রতিদিন শুনানি হবে এই মামলায়। মধ্যস্থতাকারী প্যানেলের নেতৃত্বে ছিলেন শীর্ষ আদালতের প্রাক্তন বিচারপতি এফ এম কালিফুল্লা। বাকি দু'জন সদস্য হলেন আধ্যাত্মিক গুরু শ্রী শ্রী রবিশংকর এবং বর্ষীয়ান আইনজীবী শ্রীরাম পঞ্চু। তাঁদের তরফে বৃহস্পতিবার একটি মুখবন্ধ খামে সেই রিপোর্টটি পেশ করা হয়।  

প্রসঙ্গত শতাব্দী প্রাচীন বাবরি মসজিদ ১৯৯২ সালে ভেঙে ফেলে হিন্দু আন্দোলনকারীরা। রামের জন্মস্থান অযোধ্যায় নির্মিত একটি বহু পুরনো রাম মন্দিরের ধ্বংসাবশেষের উপরই বাবরি মসজিদ নির্মিত হয়েছিল বলে বিশ্বাস ছিল তাঁদের। বাবরি মসজিদ ভাঙাকে কেন্দ্র করে দেশজুড়ে দাঙ্গা লেগে যায়। যার ফলে প্রায় ২০০০ মানুষের মৃত্যুও হয়। 

প্রায় তিন দশকের পুরনো অযোধ্যা মামলার সমাধান সূত্র বের করতে গত বছরই একটি মধ্যস্থতাকারী প্যানেল গঠন করার নির্দেশ দিয়েছিল শীর্ষ আদালতে। যে প্যানেলের কাজ ছিল, দীর্ঘদিনের পুরনো এই অযোধ্যা সমস্যার একটি সুষ্ঠু সমাধান খুঁজে বের করা। কিন্তু সেই কাজ করতে ওই প্যানেল ব্যর্থ হওয়ার কারণেই আগামী ৬ অগাস্ট থেকে এই মামলার দৈনিক শুনানির নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত।