কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না মারণ করোনা ভাইরাসকে। এপি সেন্টার চিন থেকে বিশ্বের ৯০টি দেশে ইতিমধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে মারণ করোনা ভাইরাস। শুক্রবার আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়ে গেল লাখের গণ্ডী। এমনটাই দাবি করছে জনস হফকিনস বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। করোনা এখনও পর্যন্ত বিশ্ব জুড়ে প্রাণ কেড়েছে ৩,৪০৪ জনের। তবে মারণ করোনার সঙ্গে যুদ্ধে লড়াই করে ইতিমধ্যে সেরে উঠেছেন ৫৫,৭০০ জন। 

এদিকে চিনে ইতিমধ্যে করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন ৩,০১৫ জন। আর চিন ছাড়া বাকি বিশ্বে এখনও পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ২৬৭ জন। এদের মধ্যে অধিকাংশই ইতালি ও ইরানের। গত ২৪ ঘণ্টায় ইরানে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১২০০ মানুষ। এখনও পর্যন্ত মৃতের সংখ্যআ ১২৪। 

আরও পড়ুন: শ্মশানে হোলি খেলেন মহাদেব, রীতি মেনে বারাণসীতে আবিরের সঙ্গে মিশল চিতাভস্ম, দেখুন ভিডিও

ফ্রান্স এক রাতের মধ্যে কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ২০০ জন। শুক্রবার করোনায় প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে ব্রিটেন ও নেদারল্যান্ডে। শুক্রবাক  প্রথম করোনায় আক্রান্ত রোগীর সন্ধান মিলল ভ্যাটিকান, সার্বিয়া ও টোগোতে।

আরও পড়ুন: বীভৎস নাৎসি অত্যাচারের আরও এক ছবি, খোঁজ মিলল মানুষের চামড়ার তৈরি অ্যালবামের

ইউরোপীয় ভূখণ্ডে করোনা যাতে মহামারীর আকার না নেয় সেজন্য শুক্রবার বৈঠকে বসে ইউরোপিয় ইউনিয়নের দেশগুলির স্বাস্থ্যমন্ত্রীরা। যদিও দেশে করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় আর বেশকিছু ওষুধের রফতানি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জার্মানি ফ্রান্স এবং চেকপ্রজাতন্ত্র। এদিকে আটলান্টার সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন সফর বাতিল করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সম্প্রতি এখানকার এক কর্মীর শরীরে করোনার লক্ষণ দেখা দেওয়ায় মার্কিন প্রেসিডেন্টের সফর বাতিল করা হয়। 

এদিকে অস্ট্রেলিয়ার ন্যাশনাল ইউনির্ভাসিটির গবেষণায় উঠে এসেছে ভয়ঙ্কর তথ্য। গবেষকরা আশঙ্কা করছেন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা না গেলে দুনিয়াজুড়ে ১.৫ কোটি মানুষের প্রাণ কাড়তে পারে এই মারণ ভাইরাস। সেইসঙ্গে বিশ্বজুড়ে আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়াবে ২.৩ ট্রিলিয়ন ডলার। এমনকি বেশকিছু দেশের আর্থিক বৃদ্ধির হার ৮ শতাংশ কমে যেতে পারে।