ফের ব্যালেস্টিক মিসাইল উৎক্ষেপণ উত্তর কোরিয়ার। তবে ভূমি থেকে নয় এবার সমুদ্রের নীচ থেকে এই মিসাইল পরীক্ষা করা হয়েছে বলে দাবি করল পিয়ংইয়ং। এই নিয়ে চলতি বছরে নিজের একাদশতম মিসাইল পরীক্ষা সেরে ফেলল উত্তর কোরিয়া। এটিও পারমাণবিক অস্ত্র বহনে সক্ষম বলে দাবি করা হয়েছে। 

সাগরতলের ভিতর থেকে এই ক্ষেপনাস্ত্র নিক্ষেপ করে পিয়ংইয়ং। জলের নিচে থাকা সাবমেরিন থেকে এটিকে ছোড়া সম্ভব বলে জানিয়েছে দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা কেসিএনএ। চলতি বছর মে মাসে কয়েকটি স্বল্প পাল্লার মিসাইল পরীক্ষা করেছিল উত্তর কোরিয়া। সেখান থেকে আর দূরপাল্লা নয় একেবারে সরাসরি সগরতল থেকে এবার ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করল উত্তর কোরিয়া। 

 উত্তর কোরিয়ার এই ক্ষেপনাস্ত্র পরীক্ষা নিয়ে ফের আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক মহলে আলোচনা শুরু হয়েছে। নতুন এই পরীক্ষায় সাফল্যের ফলে এখন  নিজের  দেশের সীমানার বাইরে অনেক দূরে গিয়েও মিসাইল ছুড়তে পারবে উত্তর কোরিয়ার সামরিক বাহিনী।

দক্ষিণ করিয়া দাবি করেছে, মিসাইলটি উৎক্ষেপণের পর ৯১০ কিলোমিটার গতিতে ৪৫০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে জাপান সাগরে পড়ে। অর্থাৎ ক্ষেপণাস্ত্রটি আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের অবস্থানের চেয়েও বেশি উঁচুতে পৌঁছেছিল। আমেরিকার সঙ্গে পারমাণবিক নিরস্ত্রকরণ নিয়ে ফের আলোচনা শুরু করার কথা জানানোর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই এই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাল উত্তর কোরিয়া।