Asianet News BanglaAsianet News Bangla

আজব পেশা! সারাদিন শুধু চিৎকার করেই লক্ষ লক্ষ টাকা উপার্জন করেন এই মহিলা

পেশাগতভাবে তাদের বলা হয় স্ক্রিম আর্টিস্ট। তিনি মাইকের সামনে ঘন্টার পর ঘন্টা বিভিন্ন চিৎকার করতে থাকেন, যা রেকর্ড করা হয় এবং সিনেমা এবং টিভি শোতে ব্যবহৃত হয়।

This Woman earns a lot of money just by screaming from morning till evening, know about her bpsb
Author
Kolkata, First Published Jun 17, 2022, 11:21 PM IST

বিভিন্ন ধরনের পেশার কথা নিশ্চয়ই শুনে থাকবেন। কিছু লোক একটি ভাষা অন্য ভাষায় অনুবাদ করে এবং কিছু লোক ভয়েস ডাবিং করে অর্থ উপার্জন করে। যাইহোক, আজ আমরা আপনাকে এমন একটি পেশা সম্পর্কে বলব, যেখানে আপনি শুধুমাত্র চিৎকার করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। শর্ত একটাই যে আপনার চিৎকার প্রয়োজন অনুযায়ী নিখুঁত হতে হবে। অ্যাশলে পেল্ডন নামে একজন মহিলা এই শিল্পে পারদর্শী এবং চিৎকার করা তার পেশা।

পেশাগতভাবে তাদের বলা হয় স্ক্রিম আর্টিস্ট। তিনি মাইকের সামনে ঘন্টার পর ঘন্টা বিভিন্ন চিৎকার করতে থাকেন, যা রেকর্ড করা হয় এবং সিনেমা এবং টিভি শোতে ব্যবহৃত হয়। এখন নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন ভূত দেখার পর অভিনেত্রীর চিৎকার কিংবা গর্জন ও কান্নার আওয়াজ কতটা নিখুঁত। হ্যাঁ, এটাই এই শিল্পীদের পারদর্শিতা।

চিৎকারে পারদর্শী মহিলা

অ্যাশলে পেল্ডন এই শিল্পে বিশেষজ্ঞ। তিনি প্রাকৃতিকভাবে বিভিন্ন ধরনের চিৎকার করার ক্ষমতা রাখেন। তা ব্যবহার করে তিনি রীতিমত লক্ষ লক্ষ টাকা উপার্জন করছেন। অ্যাশলে সিনেমা এবং টিভি সিরিজে চিৎকারের দৃশ্যে তার কণ্ঠ দেন। গার্ডিয়ানে তার নিবন্ধে তিনি লিখেছেন যে এই পেশাটা অনেকটা স্টান্ট ম্যানের মতো। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্নভাবে চিৎকার করতে হয়। কখন এবং কীভাবে থামতে হবে তা আপনাকে অবশ্যই জানতে হবে। যখন তার বয়স সাত বছর, তখনই তিনি এই প্রতিভা সম্পর্কে জানতে পেরেছিলেন। তিনি চাইল্ড অফ অ্যাঙ্গার নামে একটি ছবিতে কাজ করছিলেন, যেখানে অনেক চিৎকারের দৃশ্য ছিল। একই সঙ্গে এই পেশার দিকে ঝুঁকে পড়েন। ২০-২৫ বছর বয়সে, তিনি ৪০টি চলচ্চিত্র এবং টিভি সিরিজে তার কণ্ঠ দিয়েছেন।

অ্যাশলে বলেছেন যে চিৎকারের শিল্পের জন্য কোনও অনুশীলনের প্রয়োজন হয় না, এটি স্বাভাবিকভাবেই আসে। এটি তাঁর একেবারে স্বাভাবিক প্রতিভা। অ্যাশলে বলেছেন যে চিৎকারের শিল্পের জন্য কোনও অনুশীলনের প্রয়োজন হয় না, এটি স্বাভাবিকভাবেই আসে। তার মতে, প্রি-প্রোডাকশনের সময় থেকেই তার কাজ শুরু হয়। তারা জানে কখন কিভাবে চিৎকার করতে হয়। পোকা দেখার চিৎকার আলাদা, ভয়ের চিৎকার আলাদা আর সুখের চিৎকার আলাদা। যদিও অ্যাশলে বলেছেন যে ৮ ঘন্টা ধরে এভাবে টানা চিৎকার করার পরে তিনি মাঝে মাঝে খুব ক্লান্ত বোধ করেন তবে তিনি তার কাজ পছন্দ করেন।

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios