কোভিড-১৯ সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকি রয়েছে, যাদের দেখে এমন মনে হচ্ছে, চিন সরকার তাদেরই অ্যানাল সোয়াব অর্থাৎ পায়ূ থেকে নমুনা সংগ্রহ করছে। আর সেই পায়ূ থেকে নমুনা দেওয়ার পর কী হাল হচ্ছে চিনা নাগরিকদের? এই বিষয়ে সম্প্রতি একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে চিনা সোশ্যাল মিডিয়ায়। ভিডিওটি পায়ূ থেকে নমুনা দেওয়ার হাসপাতাল থেকে চিনা নাগরিকদের বের হয়ে আসার ভিডিও বলে দাবি করা হয়েছে। তবে ভিডিওটির সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে।

ভি়ডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, হাসপাতাল থেকে বের হয়ে আসা চিনা নাগরিকরা কেমন যেন পেঙ্গুইন-এর মতো করে হাঁটছেন। তাদের দুইহাত দেহর দুই পাশে কিছুটা প্রসারিত, আর দুই পা বেশ শক্ত করে একে অপরের সঙ্গে চাপা। ওই ভাবেই বেশ কষ্ট করে তাঁরা হাঁটছেন। 'ডেইলি মেইল'এর এক প্রতিবেদন অনুসারে, এই ভিডিও ক্লিপটি, গত ২৮ জানুয়ারি চিনের উত্তরাংশের হেবেই প্রদেশের রাজধানী শিজিয়াজুয়াং শহরে রেকর্ড করা হয়েছে। তারপর থেকে ভিডিওটি বিভিন্ন চিনা সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে সম্ভবত কয়েক কোটিবার দেখা হয়েছে, শেয়ার হয়েছে, বহু মানুষ বিভিন্ন মতও প্রকাশ করেছেন।

তবে, ভিডিওটি 'ভুয়ো' বলে দাবি করেছে বেজিং। এরপরই চিনের সকল সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে ভিডিওটি। চিনা কর্তৃপক্ষের দাবি তারা শিজিয়াজুয়াং ইন্টারনেট রিপোর্ট সেন্টার, সেখানকার পৌরসভার স্বাস্থ্য বিভাগ এবং পৌরসভার কোভিড -১৯ চিকিত্সা বিশেষজ্ঞ দলের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে এই ভিডিওটির সত্যতা যাচাই করেছে। তারপর তারা এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে যে, ভিডিওটি এডিট করা, এবং বানানো। কোনও স্বাস্থ্যবান ব্যক্তিরই পায়ূ থেকে নমুনা সংগ্রহ করে করোনাভাইরাসের জন্য পরীক্ষা করা হচ্ছে না, বলেই দাবি করেছে তারা। অনলাইনে যারা এই গুজব ছড়িয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে, বলে হুমকিও দেওয়া হয়েছে।

চিনের সোশ্যাল মিডিয়া থেকে ভিডিওটি সরিয়ে দিলে কী হবে, এই ভিডিও এখন বহির্বিশ্বের সোশ্যাল মিডিয়াগুলিতেও দাবানলের গতিতে ছডিয়ে পড়ছে।