২০২২ ফুটবল বিশ্বকাপের উন্মাদনা আরও একটু বাড়িয়ে দিয়ে কাতার বিশ্বকাপের সরকারি প্রতীকের উন্মোচন করল ফিফা। মঙ্গলবার রাতে কাতারের রাজধানী দোহাতে এই প্রতীকের উদ্বোধন করা হয়। 

ফুটবল বিশ্বকাপের প্রতীক উন্মোচনের সাক্ষী থাকতে কাতারের বিভিন্ন প্রান্তে হাজার হাজার ফুটবলপ্রেমী জড়ো হয়েছিলেন। উদ্বোধনের সময় একসঙ্গে বুর্জ খলিফা- সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ভবনের গায়ে প্রযুক্তির সাহায্যে এই প্রতীককে ফুটিয়ে তোলা হয়। শুধু কাতারই নয়,বিশ্বের বড় বড় বহু শহরেই এই প্রতীকের ছবি দিয়ে প্রচার শুরু করে দিয়েছে ফিফা। 

 

 

কাতার বিশ্বকাপের প্রতীকটি অনেকটা ইংরেজির আট সংখ্যার মতো দেখতে। ফিফার পক্ষ থেকে এই নকশার ব্যাখ্যা করতে গিয়ে জানানো হয়েছে, প্রতীকটির সঙ্গে বিশ্বকাপ ট্রফির আকৃতির সাদৃশ্য রয়েছে। শুধু তাই নয়, যেহেতু আটটা স্টেডিয়ামে কাতার বিশ্বকাপের খেলা হবে, তাই প্রতীকটি দেখতেও ইংরেজির আট সংখ্যার মতো রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন- ওমানই ফেভারিট, বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন পর্বে নামার আগে বললেন ভারতীয় কোচ স্টিমাচ

প্রতীকের রেখাগুলির মধ্যে ভাঁজগুলি রাখা হয়েছে মরুভূমির মধ্য দেখতে পাওয়া বালিয়াড়ির কথা মাথায় রেখে। শুধু তাই নয়, শীতকালে আরব দেশগুলিতে যে শাল ব্যবহার করা হয়, তার গায়ে থাকা কারুকার্যের মতোই প্রতীকের গায়েও লাল রংয়ের নকশা তৈরি ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। 

ফুটবল বিশ্বকাপ যেভাবে গোটা বিশ্বকে আকর্ষণ করে, সেই ভাবনার সঙ্গে আরব দেশগুলির সংস্কৃতি এবং ফুটবলের প্রতি টানের মেলবন্ধন ঘটানো হয়েছে এই প্রতীকে। ফিফা জানিয়েছে, বিশ্বকাপের আয়োজনের দায়িত্বে থাকা সবকটি স্টেডিয়ামই ২০২০ সাল শেষ হওয়ার আগেই তৈরি হয়ে যাবে। তার মধ্যে রয়েছে লুসাইল স্টেডিয়ামও। যেখানে বিশ্বকাপের উদ্বোধনী এবং ফাইনাল খেলাটিও হবে।