২০২১ সালে পশ্চিমবঙ্গে কোনও ছাত্রছাত্রীকে রাজ্য সরকারের আয়োজিত কোনও বোর্ড পরীক্ষায় বসতে হবে না। কোভিড পরিস্থিতিতে তাদের এমনিই পরের ক্লাসে তুলে দেওয়া হবে। একটি ২৩ সেকেন্ডের ভিডিও ফুটেজে এই কথাই বলতে শোনা গিয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ক্লিপ ভাইরাল হওয়ায় বিভ্রান্ত দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা, সত্যিই কি নির্বাচনের বছরে কল্পতরু হয়ে উঠলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়? না এর পিছনে রয়েছে অন্য গল্প?

সোশ্যাল মিডিয়ায় বহু মানুষ এই ভিডিও ক্লিপটি পোস্ট করেছেন। ভিডিওতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বলতে শোনা যাচ্ছে, 'মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা ২০২১। এবার যেহেতু অতিমারি চলছে, স্কুলেও যেতে পারছে না। এই পরীক্ষা দিতে যারা ইচ্ছুক, তাদের পরীক্ষা নেওয়া হবে না। এমনিই পরের ক্লাসে উঠে যাবে।' ভিডিওটির শেষে 'মমতাদি আরেকবার' বলে একটি গান এবং তার সঙ্গে কযেকজনের নাচের একটি ক্লিপও যুক্ত করা হয়েছে। ভিডিওটি পোস্ট করে ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, 'মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক এর পরীক্ষা হবে না'।

কিন্তু, সত্য়িই কি তাই? এশিয়ানেট নিউজ বাংলার পক্ষ থেকে ভিডিও ক্লিপটি পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছে ভিডিও ক্লিপটিতে ৭ সেকেন্ডের পর একটি জাম্পকাট রয়েছে। অর্থাৎ ভিডিওটিতে যে কিছু সম্পাদনা করা হয়েছে, তা স্পষ্ট। এরপর পশ্চিমবঙ্গের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা ২০২১ কিওয়ার্ড ব্যবহার করে, গুগল সার্চ ইঞ্জিনে খুঁজতে গিয়ে একটি ১১ মিনিট দীর্ঘ ভিডিও পাওয়া যায়। ভিডিওটি বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর একটি সাংবাদিক সম্মেলনের ভিডিও। সেটি ২০২০ সালের  ১১ নভেম্বর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে পোস্ট করা হয়েছিল। ওই ভিডিও-র ৩ মিনিট ৯ সেকেন্ড পর, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা নিয়ে মমতার ওই বক্তব্যের অংশটি (যেটি ভাইরাল হয়েছে) রয়েছে।

তবে কি সত্যিই মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন এই বছর বাংলায় বোর্ডের পরীক্ষা হবে না? মূল ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, প্রাথমিকভাবে মমতা সত্যিই এই কথা বলেছিলেন। তবে তাঁর বক্তব্যটি ভুল ছিল, যা পরক্ষণেই তিনি শুধরেও নিয়েছিলেন। অবিলম্বেই, ভুল শুধরে স্পষ্ট করে এই বিষয়ে সরকারি বিজ্ঞপ্তিটি পড়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। যেখানে বলা হয়েছে, পশ্চিমবঙ্গ শিক্ষা মন্ত্রকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২০২১ মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় আগে শিক্ষার্থীদের স্কুলে যে টেস্ট পরীক্ষা দিতে হয়, তা এই বছর দিতে হবে না। তবে, পরের ক্লাসে উঠতে গেলে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় বসতেই হবে। গত নভেম্বর মাসে এশিয়ানেট নিউজ-সহ বাংলার বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমেও ওই সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল।

কাজেই, এই বছর পশ্চিমবঙ্গে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা দিতে হবে না, এই দাবিটি মিথ্যা। প্রকৃত ঘটনা হল, বোর্ডের পরীক্ষা আগের মতোই দিতে হবে, কিন্তু তার আগে স্কুলে যে টেস্ট পরীক্ষা দিতে হয়, তা এই বছর দিতে হবে না। এই বিষয়ে বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর যে ক্লিপটি ভাইরাল হয়েছে সেটি সম্পাদিত এবং অসম্পূর্ণ।