স্কুলে সরস্বতী পুজো করা সংবিধান বিরোধী। একই ভাবে স্কুলে নবি দিবসের উৎসব পালন করারও বিরোধিতা করল ভারতীয় বিজ্ঞান ও যুত্তিবাদী সমিচতি। অবিলম্বে সমস্ত সরকারি এবং সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত স্কুলগুলিতে সরস্বতী পুজো এবং নবি দিবস পালন বন্ধ করার জন্য জেলা স্কুল পরিদর্শককে চিঠি দেওয়া হলো সংগঠনের পুরুলিয়া শাখার তরফে। 

সংগঠনের তরফে স্কুলের প্রধান শিক্ষকদের দেওয়া চিঠিতে বিঞ্জান ও যুক্তিবদাী সমিতির তরফে বলা হয়েছে, যেহেতু ভারত ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র, তাই সরকারি ও সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত কোনও স্কুলেই সরস্বতী পুজো বা নবি দিবসের মতো কোনও ধর্মীয় অনুষ্ঠান করা অসাংবিধানিক।

বিজ্ঞান মঞ্চের দেওয়া চিঠি। 

চিঠিতে অভিযোগ করা হয়েছে, স্কুলে ব্রাহ্মণ ডেকে এনে সরস্বতী পুজো করানো সংবিধানের ১৭ নম্বর অনুচ্ছেদের বিরোধী। কারণ এই প্রথা অন্য জাতিদের মনে অস্পৃ্ষতার ভাবনা সৃষ্টি করবে। শুধু তাই নয়, স্কুলে ধর্মীয় শিক্ষাদানও  সম্পূর্ণ বেআইনি বলে চিঠিতে স্মরণ করিয়ে দেওয়া হয়েছে। এই প্রথায় অন্য জাতিকে ছোট করে দেখানো হয়। যা স্কুল পড়ুয়াদের মনে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করতে পারে। 

২০০১ সাল থেকেই স্কুলে সরস্বতী পুজো বন্ধ করার জন্য চেষ্টা চালিয়ে আছে ভারতীয় বিজ্ঞান ও যুক্তিবাদী সমিতি। এ বছরও সরস্বতী পুজোর আগে পুরনো দাবি নিয়ে ফের সক্রিয় তারা। 

ছাত্রছাত্রীরা অবশ্য বিজ্ঞান মঞ্চের এই যুক্তি মানতে নারাজ। তারা সরস্বতী পুজোর জন্য সারা বছর অপেক্ষায় থাকে। তাই সংবিধানের যুক্তি দেখতে তারা নরাজ। পড়ুয়াদের অভিভাবকরাও এমন দাবিতে অবাক। 

যদিও এখনও এই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে কোনও প্রতিক্রিয়া দেননি জেলা স্কুল পরিদর্শক। নতুন কোনও নির্দেশিকাও জারি করা হয়নি। বিভিন্ন সরকারি ও সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত স্কুলগুলির প্রধান শিক্ষকরাও জানাচ্ছেন, তাঁরা অন্যান্য বছরের মতোই সরস্বতী পুজোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন।