ঘূর্ণিঝড় ইয়াস পরবর্তী পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে আজ দিঘায় যাচ্ছে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। ইয়াসের দাপটে সবথেকে বেশি ক্ষতি হয়েছে দিঘায়। আজ সড়কপথে ওই ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এলাকা ঘুরে দেখবেন তাঁরা। এরপর দিঘায় একটি প্রশাসনিক বৈঠকও করবেন। 

রবিবারই কলকাতায় এসে পৌঁছে ছিল সাত সদস্যের একটি কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। ইয়াসের বিধ্বস্ত এলাকাগুলি ঘুরে দেখে রিপোর্ট সংগ্রহ করছেন তাঁরা। প্রসঙ্গত, ইয়াসের জেরে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা ও পূর্ব মেদিনীপুরে। ভেঙে গিয়েছে একাধিক বাঁধ। যার কারণে জলের তলায় চলে গিয়েছে বেশ কয়েকটি গ্রাম। ভিটেহারা হয়েছেন বহু মানুষ। এমনকী, পানীয় জলের সমস্যাও দেখা দিয়েছে গ্রামগুলিতে। মূলত ওই বিধ্বস্ত এলাকাগুলি ঘুরে দেখছে ওই প্রতিনিধি দলটি। 

আরও পড়ুন- যশ বিধ্বস্ত এলাকা নদীপথে ঘুরে দেখলেন কেন্দ্রীয় দল, দেখুন ছবিতে

এই প্রতিনিধি দলটির নেতৃত্ব দিচ্ছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের যুগ্মসচিব। এছাড়াও দলে রয়েছেন কৃষি মন্ত্রক ও খাদ্য মন্ত্রকের প্রতিনিধিরা। সোমবারই কেন্দ্রীয় দলটি দু'ভাগে ভাগ হয়ে দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং পূর্ব মেদিনীপুরে রওনা দেয়। খতিয়ে দেখেন ক্ষতিগ্রস্ত নদী বাঁধগুলি। এরপর নদীপথে তীরবর্তী গ্রামগুলি পরিদর্শন করেন তাঁরা। সেখানে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কতটা তার পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট তৈরি করবেন আধিকারিকরা। সেই রিপোর্ট তুলে দেওয়া হবে কেন্দ্রের হাতে।

এদিকে ইয়াসের পর ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কলাইকুণ্ডায় ক্ষয়ক্ষতির রিপোর্ট স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর হাতে তুলে দিয়েছিলেন তিনি। তারপরও কেন বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শনে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলকে পাঠানো হল। তাহলে কি মুখ্যমন্ত্রীর রিপোর্ট যথেষ্ট নয় বলে মনে করছে কেন্দ্র। এখন এই প্রশ্নই উঠছে বিভিন্ন মহলে।