সারা সকাল তাণ্ডবের পর শুক্রবার দুপুরে খানিক আয়ত্বে এলো ওড়িশার পরিস্থিতি। ফণীর গতিপথঃ বঙ্গোপোসাগরের বুকে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ফণী ওড়িশা উপকূলে ঢোকে এদিন সকাল ৮.৩০টা নাগাদ। টানা তিন ঘন্টা পুরী ও চাঁদমারী এলাকার উপর দিয়ে বয়ে চলে এই ঝড়। যার গতিবেগ ঘন্টায় ছিল সর্বনিম্ন ১৭০ কিলোমিটার এবং সর্বচ্চ ২১০ কিলোমিটার। এরপর উত্তরপূর্ব দিক ধরে ক্রমেই এই ঝড় এগিয়ে চলেছে দীঘা মন্দারমনি এলাকায়। ইতিমধ্যে ঝোড়ো হাওয়া বইছে এই সকল অঞ্চলে। বর্তমানে ফণী কলকাতা থেকে ৩৪০ কিলোমিটার দুরে অবস্থান করছে। মধ্যরাতে কলকাতার ওপর দিয়ে বয়ে বইবে এই ঝড়। গতিবেগ থাকবে ৭০ থেকে ১০০ কিলোমিটার। আগামীকাল বিকেলে বাংলাদেশে পারি দেবে ফণী। তখন ফণীর গতিবেগ থাকবে ঘন্টায় ৬০ থেকে ৭০ কিলোমিটার।

রাজ্যের আবহাওয়া এক নজরেঃ       

  • রাজ্যে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে সকাল থেকেই।
  • হালকা মাঝারি পরিমাণের বৃষ্টি হচ্ছে রাজ্যের মোট ১১টি এলাকায়। শুক্রবার ৭ থেকে ২০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টি হবে বেশ কয়েটি জায়গায়।
  • পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বর্ধমান, মুর্শিদাবাদ, নদীয়া প্রভৃতি অঞ্চলে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর।
  • আগামীকালও আকাশের পরিস্থিতি থাকবে একই রকম। কলকাতায় ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। সঙ্গে হাওয়ার গতিও থাকবে স্বাভাবিকের থেকে বেশি।
  • শুক্রবার সন্ধে থেকেই ৪০ থেক ৫০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইবে বেশকিছু এলাকায়।
  • রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কলকাতায় বৃদ্ধিপাতে হাওয়ার গতি।
  • সমুদ্র ও নদী উপকূলবর্তী এলাকায় সতর্কতা জারি করা হয়েছে। শনিবার বিকেল পর্যন্ত নদী বা সমুদ্রের পার থেকে স্বাভাবিক দুরত্ব বজায় রাখার কথাও জানানো হয়েছে আবহাওয়া দপ্তরের পক্ষ থেকে।