অনেক রথী মহারথী ছিলেন, ঠাকরে পরিবার থেকে প্রথমবার ভোটে দাঁড়িয়েছিলেন আদিত্য ঠাকরে। মহারাষ্ট্রে বেশ কয়েকজন বিশিষ্ট নেতার পুত্র কন্য়ারা ছিলেন। হরিয়ানাতে প্রাক্তন কুস্তিগির, প্রাক্তন হকি তারকা, টিকটক তারকারাও ছিলেন। ছিলেন দীর্ঘদিনের বেশ কিছু দুঁদে রাজনৈতিক নেতাও। কিন্তু সকলকে ছাপিয়ে গেলেন হরিয়ানার জননায়ক জনতা পার্টির নেতা দুষ্যন্ত চৌটালা।   

এখনো ভোটের ফল পুরোপুরি ঘোষিত হয়নি, কিন্তু হরিয়ানায় বিজেপি যে একক সংখ্যা গরীষ্ঠতা পাচ্ছে না, তা অনেকটাই নিশ্চিত। সেইরকমই নিশ্চিত বিজেপি বা কংগ্রেস যেই শিবিরই সরকার গড়ুক, তাদের ধরতেই হবে দুশ্যন্ত চৌটালার হাত। অথচ লোকদল ভেঙে বেরিয়ে এসে ২০১৮ সালের ডিসেম্বরেই জননায়ক জনতা পার্টি গঠন করেছিলেন দুশ্যন্ত।

পারিবারিক কলহের জেরে লোকদল ভেঙে যায়। বর্ষীয়ান রাজনৈতিক নেতা তথা ভারতের রাষ্ট্রীয় লোকদলের প্রতিষ্ঠাতা ওমপ্রকাশ চৌটালা তাঁর বড় ছেলে অজয় ​​সিং এবং নাতি দুশ্যন্ত ও দিগ্বিজয়কে পরিবার ও দল থেকে ত্যায্য ঘোষণা করেন। তারপরই নতুন দল গঠন করেছিলেন দুশ্যন্ত। ২০১৯ লোকসভা ভোটে পায়ের নিচে জমি পায়নি তাঁর দল। কিন্তু পরের চার-পাঁচ মাসের মধ্যেই রাজ্যে অভাবনীয় উত্থান ঘটল তাঁর দলের। ইতিমধ্যেই জেজেপি হরিয়ানায় ৪ আসনে জয়ী হয়েছে, এগিয়ে আরও ৬ আসনে। আর যুযুধান বিজেপি ও কংগ্রেস এগিয়ে রয়েছে যথাক্রমে ৩৯ ও ৩৩টি আসন।

নেটিজেনরা একযোগে দিনের নায়ক হিসেবে বেছে নিয়েছেন দুশ্যন্ত চৌটালা-কেই। নেট দুনিয়া ছেয়ে গিয়েছে তাঁকে নিয়ে তৈরি মিম-এ। বলিউডের বিভিন্ন সংলাপো বসিয়ে দেওয়া হয়েছে তাঁর মুখে। দেখে নেওয়া যা এরকমই মজার কিছু মিম -