তামিলনাড়ুর মন্দিরকে যারা মুক্ত করবে তিনি তাঁদেরও ভোট দিয়েছিল। তামিলনাড়ু বিধানসভা নির্বাচনে অংশ নিয়ে এমন কথাই জানালেন ইশা ফাউন্ডেষশনের প্রতিষ্ঠা সদগুরু। তিনি বলেন রাজ্য সরকারে হাত থেকে তামিল মন্দিরগুলিকে মুক্তকরাই তাঁর এক ও একমাত্র লক্ষ্য। একটা সময় যে সদগুরু ভোটকে 'গণতন্ত্রের নাচ' বলে কটাক্ষ করেছিলেন ভোটদানের পর তিনি রাজ্যের নাগরিকদের দায়িত্ব সহকারে ভোট দেওয়ার জন্য আহ্বান করেন। 

সদগুরু আরও বলেন ধর্ম, বর্ণ বা দলের কারণে ভোট দেন না তিনি। রাজ্যকে শক্তিশালী করা ও জনগণের মঙ্গলকামনার জন্যই ভোট দেওয়া জরুরি বলেও মনে করেন তিনি। তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়ে বলেছেন তাঁর ভোট তাদের জন্য তাঁরা তাঁর সাংবাধিনিক অধিকার রক্ষ করবে ও তামিল মন্দিরগুলিকে স্বাধীন করবে। তিনি বলেন যে দলই ক্ষমতায় আসুক না কেন আগামী পাঁচ বছর তামিল মন্দিরগুলিকে রাষ্ট্রের নিয়ন্ত্রণ থেকে মুক্ত করার জন্য কাজ করে যাবেন তিনি।

ভোটের মধ্যেই দেশের কোভিড-পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা, মোদীর ডাকা বৈঠক এড়িয়ে যেতে পারেন মমতা ..

Election Live Update- শ্রীরামপুরে মমতা-দিনহাটায় রোড শোয়ে নাড্ডা, ওদিকে হাওড়ায় যোগীর পাল্টা জয়া . 

যশের সমর্থনে CAA হাতিয়ার, চণ্ডীতলা থেকে মমতাকে আক্রমণ যোগী আদিত্যনাথের .

তাঁর ফি তামিলনাড়ু মন্দির আন্দোলন বিশেষ গুরুত্বপপূর্ণ হয়ে দাঁড়িয়ে ভোটের মুখে। তামিল রাজনৈতিক দলগুলির পাশাপাশি জাতীয় রাজনৈতিক দলগুলিও বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ফ্রি তামিলনাড়ু মন্দির প্রচার চালিয়ে ৩ কোটিরও বেশি সমর্থন পাওয়া গেছে। যাকে তিনি জনগণের রায় বলেও চিহ্নিত করেছেন। এই আন্দোলনে যোগ দিয়েছিলেন সেলিব্রিটি, অভেনেতা অভিনেত্রী, শিল্পপতি থেকে করে বহু সাধারণ মানুষও। একই সঙ্গে হিন্দুদের উপাসনার স্থান পরিচালনায় বৈষম্যমূলক আচরণ বন্ধ করারও আবেদন জানান হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে সদগুরু ইতিমধ্যেই তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী পালানাস্বামী ও বিরোধী নেতা এমকে স্ট্যালিনকে চিঠি লিখেছেন। সেখানে দ্রাবিড় জাতির হত গৌরব ফিরিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি মন্দিরগুলিকে মুক্ত করার দাবিও জানিয়েছেন তিনি।