জাতকের জন্ম সময়, তারিখ এবং জন্মস্থানের ভিত্তিতে, জন্মকালে মহাকাশে গ্রহের অবস্থান নিরুপণ করে অথবা প্রশ্নের সময় গ্রহাদির অবস্থান নির্ণয় করে, অথবা হস্তরেখাবিচার, শরীরের চিহ্নবিচার ইত্যাদি বিভিন্ন পদ্ধতির ব্যবহারে প্রশ্নকর্তার ভবিষ্যতের গতিপ্রকৃতি নির্ধারণ করার জ্ঞান ও পদ্ধতিকে জ্যোতিষশাস্ত্র বলা হয়। আবার জ্যোতিষশাস্ত্রের একটি বিভাগ দেশ, রাজ্য, শহর, গ্রাম ইত্যাদির এবং প্রাকৃতিক ঘটনাবলীর যেমন বৃষ্টি, অতিবৃষ্টি, অনাবৃষ্টি, ভূমিকম্প, ঝড়, ঝঞ্ঝা, মহামারী বা প্লাবণের ভবিষ্যদ্বাণী করতেও ব্যবহৃত হয়।

আরও পড়ুন- সিংহ রাশির কতটা উন্নতি হবে এই মাসে, দেখে নিন

প্রতিটি মানুষেরই জীবনে সাফল্য পেতে বহু বাধা বিপত্তি অতিক্রম করতে হয়। নানান সমস্য়া ও প্রতিকূলতা কাটিয়ে উঠে তবে একজন ব্যক্তি সাফল্যের মুখ দেখেন। তবে এমন বহু ব্যক্তি আছেন যাঁরা প্রতিনিয়ত বাধা বিপত্তি সম্মুখিন হয়েও জীবনে সফল হতে পারছেন না। জ্যোতিষশাস্ত্রের মতে, ভাগ্য অনুযায়ী জীবনে নানা ঘটনা বা বিভিন্ন অনুকূল ও প্রতিকূল পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয়। রাশি ভেদে আমাদের ভাগ্যে নির্ধারণ করা থাকে আমাদের কর্মজীবন কেমন হবে। সেভাবেই আজ জেনে নেওয়া যাক, ২০২০ সালে কুম্ভ রাশির জাতক জাতিকাদের কর্মজীবন কেমন হবে।

আরও পড়ুন- সোমবারের সারাদিন কেমন কাটবে আপনার, দেখে নিন রাশিফল

রাশিচক্রের একাদশতম রাশি কুম্ভ। এই রাশির অধিপতি গ্রহ শনি। আমাদের জীবনে নানা ধরনের শুভ বা অশুভ ঘটনা, যা আমাদের ভাগ্যে পূর্ব নির্ধারিত হয়ে রয়েছে তা জানা যায় এক মাত্র জ্যোতিষশাস্ত্র অনুসারে। কুম্ভ রাশির জাতক জাতিকাদের কর্মজীবন কেমন হয় দেখে নেওয়া যাক। কুম্ভ রাশির জাতক জাতিকাদের জন্ম থেকে মৃত্যুর আগে অবধি নানা রকম বাধা বিপত্তি অতিক্রম করে সাফল্যের মুখ দেখতে হয়। আত্মবিশ্বাস, সংস্কার-প্রিয়তা, একাগ্রতা, ধীর-স্থির ও সহিষ্ণুতা এই রাশির জাতক জাতিকাদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য। এই রাশির জাতক জাতিকারা একা থাকতে ভালোবাসে। অবসাদ, নৈরাশ্য, মনের অস্থিরতা এদের মধ্যে লক্ষ্য করা যায়। গণিত, জ্যোতিষ, বিজ্ঞান প্রভৃতিতে পারদর্শী হয়। 

আরও পড়ুন- কর্কট রাশির কতটা উন্নতি হবে এই মাসে, দেখে নিন

এরা সাধারণত ভাবুক, দার্শনিক ও ধর্মপরায়ণ হয়ে থাকে। সর্বদাই অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে থাকে। জীবনের প্রথমভাগে প্রচুর কষ্ট পেলেও পরে সুখভোগ করে থাকে। সাধারণত ভালো স্বভাবের কিন্তু গ্রহ দোষ থাকলে অসৎ এবং নিষ্ঠুর প্রকৃতির হয়ে ওঠে। কোনও কোনও ক্ষেত্রে চরিত্রিক দুর্বলতার জন্য কুপথে যেতে বাধ্য হয়। এরা বেশি ঝামেলা পছন্দ করে না, শান্তি এদের বেশি পছন্দ। চাকরির থেকে ব্যবসায় ভাগ্য ভাল হয় এদের। জীবনে অনেক বার বাধা আসলেও আবার শুভ ঘটনা ঘটে, বিশেষ করে ২৫ থেকে ৫৩ বছর বয়সের মধ্যে। নতুন বছরে এই রাশির ক্যারিয়ার ভালো ও স্থিতিশীল হওয়ার যোগ রয়েছে। আগামী বছরের শেষের দিকে বাড়িতে কোনও মাঙ্গলিক কাজের জন্য ব্যয় বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে।