বন্ধুত্ব হল মানুষের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক। আত্মার শক্তিশালী বন্ধন হল বন্ধুত্ব। সমাজবিদ্যা, সামাজিক মনোবিজ্ঞান, নৃতত্ত্ব, এবং দর্শনে বন্ধুত্বের ব্যখ্যা রয়েছে। সামাজিক বিনিময় তত্ত্ব, ইকুইটি তত্ত্ব, রিলেশনাল দ্বন্দ্ববাদ, এবং সংযুক্তি শৈলী সহ ইত্যাদিতে বন্ধুত্বের বিভিন্ন একাডেমিক তত্ত্ব প্রস্তাব করা হয়েছে। ওয়ার্ল্ড হ্যাপিনেস ডেটাবেজ গবেষণায় দেখা গেছে যে ঘনিষ্ঠ বন্ধুত্বের কারনে মানুষ সুখী হয়। আবার জ্যোতিষশাস্ত্র মতে, জাতক বা জাতিকার রাশি তাঁর ব্যক্তিত্ব সম্পর্কে জানতে সাহায্য করে। একইভাবে কোনও ব্যক্তির আচরণ এবং তাঁর চরিত্রের বৈশিষ্ট্য নির্ভর করে সেই ব্যক্তির জন্ম সময়, কাল বা জন্ম মাসের উপর। একজন মানুষ সম্পর্কে অনেক কিছুই বলে দেওয়া সম্ভব তার রাশির বিষয়ে জ্ঞান থাকলে। তবে চলুন জেনে নেওয়া যাক রাশি অনুযায়ী বন্ধু হিসেবে কোন রাশি কেমন হয়।

আরও পড়ুন- অগ্রহায়ণ মাস কেমন প্রভাব ফেলবে মীন রাশির উপর

মেষ- রাশিচক্রের প্রথম এই রাশি সাহসী ও সেই সঙ্গে ইমপালসিভ। এঁরা খুব দ্রুত বন্ধুত্ব করতে পারেন। আবার সামান্য আঘাত পেলে সেই বন্ধুত্ব ভেঙে দিতেও এঁদের সময় লাগে না। 

বৃষ- রাশিচক্রের দ্বিতীয় এই রাশি আক্ষরিক অর্থেই ভাল বন্ধু। এরা খুব নির্ভরযোগ্য, তাই এই রাশির জাতক-জাতিকাদের মত বন্ধু দ্বিতীয়টি পাবেন না।   

মিথুন- রাশিচক্রের তৃতীয় এই রাশির জাতক-জাতিকারা অনেক বেশি সক্রিয় হন। আড্ডা জমিয়ে তুলতে এরা পটু। তবে কোনও ঝামেলায় এরা সহসা জড়াতে চায় না।

আরও পড়ুন- কেমন কাটবে রবিবারের সারাদিন, দেখে নিন রাশিফল

কর্কট— রাশিচক্রের চতুর্থ এই রাশি খুব নির্বাচন করে তবে বন্ধু বাছাই করেন। তবে বন্ধু হিসেবে এঁরা খুব বিশ্বাসী। বন্ধুকে বিপদ থেকে উদ্ধার করতে এরা সব সময় সাহায্য করে।  

সিংহ— রাশিচক্রের পঞ্চম এই রাশি বন্ধু হিসেবে অনবদ্য। এঁদের উপস্থিত বুদ্ধি যে কোনও পরিস্থিতিতে আপনাকে বিপদ থেকে আপনাকে উদ্ধার হতে সাহায্য করবে। তবে এরা নেতাসুলভ আচরণও রয়েছে যা আপনাকে ভালো বন্ধু পেতে গেলে মানিয়ে নিতে হবে।

কন্যা— রাশিচক্রের ষষ্ঠ এই রাশি একা থাকতেই বেশি  স্বচ্ছন্দ্যবোধ করেন। এদের বন্ধুর সংখ্যা খুব সীমিত। তবে এদের একা থাকা ও চুপচাপ স্বভাবের জন্য এরা বন্ধুদের মধ্যে খুব একটা জনপ্রিয় হয়ে উঠতে পারেন না।

তুলা— রাশিচক্রের সপ্তম এই রাশি বন্ধু মহলে অত্যন্ত জনপ্রিয়। এরা যে কোনও পরিস্থিতিতে আপনাকে মানিয়ে নেবে। অতিরিক্ত পরিচিতির কারণে এরা অত্যন্ত ব্যস্ত থাকে। তাই বন্ধুদের ঠিক মত সময় দিয়ে উঠতে পারেন না। 

বৃশ্চিক— রাশিচক্রের অষ্টম এই রাশির বন্ধুর সংখ্যা খুব কম হয়। তবে যাঁদের সঙ্গে এরা বন্ধুত্ব রাখেন তাঁদের সঙ্গে এদের সম্পর্ক একেবারে অন্য মাত্রায় থাকে। বন্ধুদের জন্য নিঃস্বার্থ ভাবে সাহায্য করেন।

ধনু— রাশিচক্রের নবম এই রাশি বন্ধু হিসেবে খুব মজাদার। এদের সঙ্গে কাটানো মুহূর্ত আপনার কাটানো স্মরণীয় সময়গুলোর মধ্যে একটি হয়ে থাকে। পাশাপাশি এরা অত্যন্ত আবেগপ্রবণও হয়ে থাকেন।

মকর— রাশিচক্রের দশম এই রাশি অত্যন্ত ভাবুক প্রকৃতির হয়ে থাকে। এরা যাদের থেকে অনুগত্য লাভ করেন এরা তাঁদের সঙ্গেই বন্ধুত্ব করেন। 

কুম্ভ— রাশিচক্রের নবম এই রাশি নতুন বন্ধুত্ব করতে ভালোবাসেন। তবে এরা অত্যন্ত সহজ সরল। প্রচুর বন্ধু ও তাঁদের সঙ্গে সময় কাটানো এঁদের নেশা বলতে পারেন।

মীন— এরা অতিরিক্ত আবেগপ্রবণ। বন্ধু মানে এদের কাছে আত্মার সম্পর্ক। বন্ধুত্ব বা সম্পর্ক আগলে রাখতে এরা খুব ভালো জানেন। তাই এমন বন্ধু পাওয়া সামলে রাখা দরকার।