২২ আগস্ট শনিবার থেকে শুরু হবে গণেশ চতুর্থী । এই বছর, গণেশ চতুর্থীতে, সূর্য থাকবে সিংহ রাশিতে এবং মঙ্গল থাকবে মেষ রাশিতে। গণেশ উৎসবের শুরুতে, সূর্য-মঙ্গল গ্রহের এই যোগটি ১২৬ বছরের মধ্যে ঘটেনি। ১২৬ বছর আগে গঠিত হয়েছিল এই যোগ। জ্যোতিশাস্ত্রের মতে, ১৮৯৩ সালে বাল গঙ্গাধর তিলক প্রকাশ্যে দশ দিনের গণেশ উত্সব উদযাপন শুরু করেছিলেন। সেই সময়েও, সূর্য সিংহ রাশিতে এবং মঙ্গল মেষ রাশিতে অবস্থিত ছিল। এবার আবার ১২৬ বছর পর ঘটছে যখন সূর্য ও মঙ্গল তার নিজ নিজ রাশিতে থাকবে। ১৮৯৩ এর আগে দেশ জুড়ে নিজ নিজ বাড়িতে গণেশ জন্মনোৎসব উদযাপন করতেন।

এই বছর মূর্তি স্থাপনের শুভ সময়

বাড়িতে গণেশ মূর্তি স্থাপনের শুভ সময়- সকাল সাড়ে ৭ টা থেকে ৯ টা পর্যন্ত।

দোকান এবং অফিসের জন্য - বেলা ১.৩০ থেকে বিকেল ৪.৩০ পর্যন্ত।

শিক্ষার্থী এবং বারোয়ারী প্যান্ডেলগুলির জন্য মূর্তি প্রতিষ্ঠার সময় - সন্ধা ৬ টা থেকে ৭.৩০ টা পর্যন্ত।

মঙ্গলবার ও বুধবার গণেশ পুজো সম্পর্কিত জ্যোতিষীয় বিশ্বাস-

গণেশোৎসব চিত্র চিত্রাক্ষরে শুরু হয়। এই কারণে মঙ্গলবারও গণেশের বিশেষ পুজো করার রীতি রয়েছে। চিত্র নক্ষত্রের প্রথম পর্বটি কন্যা রাশি, এর অধিপতি বুধ। এজন্য বুধবার গণেশের বিশেষ উপাসনা করা হয়।

গণেশ উত্সবের এই যোগগুলি ভারতের পক্ষে মঙ্গলজনক হবে

এবার গণেশ উত্সবে চারটি গ্রহ সূর্য সিংহ, মঙ্গল মেষ রাশিতে, ধনু রাশিতে বৃহস্পতি এবং মকর রাশিতে শনি থাকবে। এই চারটি গ্রহ তাদের নিজ নিজ রাশিরগুলিতে বাস করবে। এই গ্রহ যোগগুলিতে গণেশ উৎসবের সূচনা ভারতের জন্য শুভ হতে চলেছে। সময়টি সমস্ত গ্রহের সামঞ্জস্যতা এবং স্বাধীন ভারতের রাশিচক্রের পক্ষে উপযুক্ত হবে। বৃহস্পতি ধনু রাশিতে থাকা এই কাকতালীয় বিষয়টিকে আরও উন্নত করে তুলবে। ব্যবসায় অগ্রগতি হবে এবং বিশ্বে ভারতের আধিপত্য বাড়বে। কমবে প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও কমতে শুরু করবে মহামারির প্রকোপ। সন্ত্রাসবাদ নিয়ন্ত্রণে থাকবে। এই সময়টি জনসাধারণের পক্ষেও অনুকূল থাকবে।