জুনে দুটি এবং জুলাইতে মাসে একটি গ্রহণের যোগ রয়েছে। চন্দ্রগ্রহণ হবে ৫ জুন, ২১ জুন হবে সূর্যগ্রহণ। এর পরের মাসে ৫ জুলাই পুনরায় গ্রহণের যোগ রয়েছে। জ্যোতিষশাস্ত্রের মতে, এই সময় শনি মকর রাশিতে রয়েছে। এই বছরের আগে এই যোগ ১৯৬২ সালে গঠিত হয়েছিল। তারপরে শনি মকর রাশিতে ছিল এবং সেই একইভাবে পরপর তিনটি গ্রহণ হয়েছিল। ৫ জুন জ্যেষ্ঠ মাসের পূর্ণিমা। ২১ জুন আষাঢ় মাসের অমাবস্যা। ৫ জুলাই আষাঢ় মাসের পূর্ণিমাতে এই তিনটি গ্রহণের যোগ রয়েছে। 

১৯৬২ সালে ৫৮ বছর আগে, পয়লা জুলাই চন্দ্রগ্রহণ হয়েছিল, ৩১ জুলাই একটি সূর্যগ্রহণ এবং ১৫ ই আগস্টে আবার একটি মান্দ্য চন্দ্রগ্রহণ হয়েছিল। তারপরেও শনি মকর রাশিতে ছিল। এই বছরের চন্দ্রগ্রহণ ৫ জুন ভারতে দৃশ্যমান থাকবে। তবে দিনের আবহাওয়ার কারণে তা দৃশ্যমান নাও হতে পারে। ৫ জুন এবং ৫ জুলাই উভয়ের চন্দ্রগ্রহণ বৈধ, সুতরাং এগুলির কোনও ধর্মীয় প্রভাব পড়বে না। এই দুটি রাশিচক্রের কোনওটিই এই দুটি চন্দ্রগ্রহণের ফলে প্রভাব ফেলবে না।

প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের যোগফল-

মঙ্গল গ্রহ মৃগশিরা নক্ষত্রের কর্তা। মকর রাশিতে অবস্থিত ভাকরি শনি-তে সম্পূর্ণ তৃতীয় স্থানে থাকবে। ফলে মীন রাশিতে অবস্থিত মঙ্গল গ্রহের উপর পড়ে মঙ্গল সূর্যের দিকে এবং শনি ও বৃহস্পতির সংমিশ্রনের দিকে থাকবে। এই গ্রহ অবস্থানগুলি বড় ধরনের ভূমিকম্পের কারণ হতে পারে। এটির সঙ্গে অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগের সম্ভাবনাও তৈরি হতে পারে।

সমস্ত রাশিচক্রের উপর গ্রহণের প্রভাব-

সূর্যগ্রহণ মেষ, সিংহ, কন্যা ও কুম্ভ রাশির জন্য শুভ ফলাফলের অবস্থায় থাকবে। এই লোকেরা ভাগ্য ঘুরতে পারে। পাশাপাশি বৃষ, মিথুন, কর্কট, তুলা, বৃশ্চিক, ধনু, মকর এবং মীন রাশির জাতকদের সতর্কতার সঙ্গে কাজ করতে হবে। এই রাশিগুলির জন্য বাধা বাড়তে পারে।