শাস্ত্র মতে, সব ধরনের ঠাকুরের মূর্তি বাড়িতে রাখা যায় না। বাস্তুশাস্ত্রের একাধিত বইয়েও উল্লখে আছে এই নিয়মের। ঘর সাজাতে অনেকেই বাড়িতে বুদ্ধি মূর্তি রাখেন। তবে বাড়িতে এই মূর্তি রাখা যায় কি না এই নিয়েই আজকের এই প্রতিবেদন। বিশেষজ্ঞদের মতে, সঠিক নিয়ম মেনে যদি বুদ্ধি মূর্তি বাড়িতে রাখা যায় তবে মেল অনেক উপকার।

আরও পড়ুন- মকর রাশির উপর কেমন প্রভাব থাকবে এই মাসে, দেখে নিন

গৌতম বুদ্ধ হলেন সর্বশক্তির আধার। তাই বাড়িতে বুদ্ধ মূর্তি রাখা মানে সকল প্রকার নেগেটিভ শক্তি থেকে মুক্তি। লিভিং রুমে বা বাড়ির সদর দরজার সামনে এই মূর্তি রাখলে দারুন ফল পাবেন। কোনও খারাপ ধরনের ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা থাকে না। বুদ্ধ মূর্তির সামনে ধ্যান করে ওম মন্ত্র জপ করলে সকল প্রকার রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। পাশাপাশি অফিস ডেস্কে বুদ্ধ মূর্তি রাখলে কর্মক্ষেত্রে চূরান্ত সফলতা লাভের সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়। 

আরও পড়ুন- মঙ্গলবারের সারাদিন কেমন কাটবে, দেখে নিন এক নজরে

 

ফেং শুই এক্সপার্ট এবং বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতে, বুদ্ধ মূর্তি যত বড় হবে ততই ভালো। তাই নিজের সামর্থ মত বাড়িতে নিয়ে আসতেই পারেন শান্তির এই প্রতিকৃৎ। পড়ার টেবিলেও রাখতে পারেন এই মূর্তি। তাতে পজেটিভ শক্তির প্রভাব বৃদ্ধি পায়। বিদ্যার্থীদের পড়ার প্রতি মনযোগ বৃদ্ধির সম্ভাবনাও বাড়ে। বুদ্ধ মূর্তির সামনে সুগন্ধি মোমবাতি ও সাদা ফুল দিতে পারেন। তাই বাড়িতে বা অফিসে এই মূর্তি রাখলে সুখ-শান্তির ঝাঁপি তো কখনও খালি হয় না, উল্টে পজিটিভ শক্তিতে ভরে ওঠে সেই স্থান।