১৬ অগাস্ট, মঙ্গল গ্রহ নিজের জাতক মেষ রাশিতে প্রবেশ করবে। এর আগে, এই গ্রহটি মীন রাশিতে ছিল। মঙ্গল গ্রহ মেষে প্রবেশের পরে বৃহস্পতি এবং কেতুও এই ঘরে আগে থেকেই রয়েছে। এই তিন গ্রহের একত্রে অবস্থানটি কুম্ভ এবং মিথুন রাশির জন্য মঙ্গলজনক হবে। বৃশ্চিক এবং কর্কট রাশির জন্য স্বাভাবিক হবে। অন্যদিকে, মেষ, মীন, মকর, মকর, ধনু, তুলা, কন্যা, সিংহ এবং বৃষ রাশির সতর্ক থাকতে হবে। মঙ্গল গ্রহ এর ৬ মাস পরে বৃষ রাশিতে প্রবেশ করবে।

মঙ্গল গ্রহ সাধারণত ৪৫ দিনের মধ্যে রাশিচক্র পরিবর্তন করে। তবে এবার পরবর্তী চিহ্নটি অর্থাৎ বৃষে যেতে ৬ মাসের বেশি সময় লাগবে। ১৬ ই আগস্ট থেকে মঙ্গল গ্রহে মেষ রাশিতে থাকবে। ১০ সেপ্টেম্বর, এটি মেষ রাশি ছেড়ে বক্রী হয়ে ফিরে আসার সময়, ৪ অক্টোবর মীন রাশিতে ফিরে যাবে। তারপরে ১৪ নভেম্বর, এটি মীন থেকে আবারও  ২৩ ডিসেম্বর মেষরাশিতে আসবে। এর পরে, ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে, বৃষ রাশিতে প্রবেশ করবে।

কেতু, বৃহস্পতি এবং মঙ্গল এর যোগ

জ্যোতিষশাস্ত্রের মতে, মেষ রাশিতে মঙ্গল গ্রহের আগমনের কারণে বৃহস্পতি এবং কেতু এর পঞ্চম ঘরে দৃষ্টি রাখবে। যার প্রভাবে দেশের পশ্চিম ও উত্তর রাজ্যে ক্ষমতার বিভাজন হতে পারে। সামাজিক উত্তেজনা ও অস্থিরতা তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। দেশে বাহ্যিক শত্রুদের হস্তক্ষেপ বাড়তে পারে। জাতীয় আয় বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে। সম্পদের বিকাশ হতে পারে। কিছু নতুন মুখও আকর্ষণের কেন্দ্র বিন্দুতে পরিণত হবে। আন্তর্জাতীয় ক্ষেত্রে আগ্রহ বৃদ্ধি পাবে।

তিন গ্রহের এই যোগ সৃষ্টির ফলে কোনও জাতীয় ব্যক্তিত্বের মৃত্যুর সম্ভাবনা রয়েছে। সেই সঙ্গে সন্ত্রাসবাদ বৃদ্ধিরও সম্ভাবনা রয়েছে। দেশের উত্তরাঞ্চলে সমস্যা আরও জটিল আকার ধারণ করতে পারে। রাজনৈতিক অঙ্গনে অস্থিতিশীলতা থাকবেই। যানবাহন দুর্ঘটনা বাড়তে পারে। দক্ষিণের সমুদ্র তীর থেকে জাতীয় আয় হ্রাস পেতে পারে, তবে খাদ্য দ্রব্যগুলির মূল্য বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে। কোনও কোনও রাজনীতিবিদ দলের অভ্যন্তরীণ ষড়যন্ত্রের শিকার হতে পারেন। এর পর ৪ অক্টোবর মীন রাশিতে মঙ্গল আসার পরে, দেশের শত্রুরা দুর্বল হবে। পরিস্থিতি সাধারণ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।