জ্যোতিষ একটি সংস্কৃত শব্দ। এই শব্দের একটি অর্থ হল “জ্যোতির্বিষয়ক” এবং অস্ত্যর্থে এই শব্দের একটি অর্থ হল “জ্যোতিষশাস্ত্রবিৎ” এবং অন্য অর্থ “জ্যোতির্ব্বিৎ”। জ্যোতিষ ৬ টি বেদাঙ্গের অন্যতম। বেদাঙ্গ জ্যোতিষের উপলব্ধ শ্লোকগুলিতে মূলতঃ সূর্য্য-চন্দ্রের আবর্তন ও ঋতুপরিবর্তন সংক্রান্ত বিষয় আলোচিত হয়েছে। বেদের লিপিবদ্ধকরণের সময় যজ্ঞানুষ্ঠানের দিন, ক্ষণ ও মূহুর্তাদি নির্ণয়েও জ্যোতিষের বহুল ব্যবহার ছিল। জ্যোতিষশাস্ত্রের একটি বিভাগ দেশ, রাজ্য, শহর, গ্রাম ইত্যাদির এবং প্রাকৃতিক ঘটনাবলীর যেমন বৃষ্টি, অতিবৃষ্টি, অনাবৃষ্টি, ভূমিকম্প, ঝড়, ঝঞ্ঝা, মহামারী বা প্লাবণের ভবিষ্যদ্বাণী করতেও ব্যবহৃত হয়। 

আরও পড়ুন- চৈত্র মাস কেমন প্রভাব ফেলবে কুম্ভ রাশির উপর, দেখে নিন

জন্ম যার আছে তার মৃত্যুও আছে -এ কথা সত্য়ি। প্রতিনিয়ত দুনিয়ায় কত দুর্ঘটনা, প্রাকৃতিক বিপর্যয় মহামারী ঘটেই চলেছে। যার ফলে মৃত্যু হচ্ছে বহু মানুষের। এই যেমন বর্তমানে করোনা ভাইরাসের আক্রমণে প্রায় প্রতিদিনই কত সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। করোনা ভাইরাসের আক্রমণে প্রায় সারাবিশ্বে লকডাউন চলছে। এমন সমস্ত মহামারী বা প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে আবার প্রাণেও বেঁচে ফিরেছেন অনেকে। তবে কি তারা কপালজোড়েই বেঁচে ফিরেছেন? এই বিষয়ে কি বলছে জ্যোতিষশাস্ত্র! সুবিশাল এই পৃথিবীতে ছোট বড় যত ঘটনা ঘটে তার পুরোটাই নির্ভর করে গ্রহ এবং নক্ষত্রের গতিবিধির উপর, এমনটাই দাবি জ্যোতিষশাস্ত্রর।

আরও পড়ুন- সিংহ রাশির আর্থিক উন্নতির যোগ রয়েছে, দেখে নিন আপনার রাশিফল

 প্রাকৃতিক বিপর্যয় বা মহামারীর ফলে যে বহুমৃত্যু হয় জ্যোতিষশাস্ত্রর মতে, কোনও জাতকের অষ্টম ভাবের অধিপতির সঙ্গে তিন বা তার বেশি গ্রহ যদি একই রাশিতে থাকে তবে সেই ব্যক্তির প্রাকৃতিক বিপর্যয় বা দুর্ঘটনার ফলে আকষ্মিক মৃত্যুর সম্ভাবনা থাকে। জ্যোতিষশাস্ত্রের মতে কোনও দেশের দুর্ঘটনাগ্রস্ত স্থানের নামের রাশিও নাকি এক্ষেত্রে কাজ করে। কোনও দেশের জন্মলগ্ন, সেই দেশের প্রধাণ যিনি তাঁর রাশি, গ্রহের প্রভাবের উপর নির্ভর করে। এই সব কারণ ছাড়াও জাতকের গোচর খারাপ হলেও যুগপত মৃত্যুর সম্ভাবনা থাকে। শুধু এই নয় যদি জাতকের অষ্টাধিপতি গ্রহর অষ্টমভাব, আয়ুস্থান, ক্ষীণ অধিপতি অস্তগত হবে, অথবা পাপদ্বারা প্রভাবিত হবে তখন সেই জাতকের প্রাকৃতিক বিপর্যয় বা মহামারীর ফলে মৃত্যুর যোগ থাকে।