শ্রাবণ মাসকে মনে করা হয় শিবের মাস ৷  ধর্মীয় বিশ্বাস অনুসারে শ্রাবণের সোমবারে শিব পুজোর তাত্পর্য রয়েছে কারণ এই ব্রত বা উপবাস পালনে সমস্ত দুর্ভোগ দূর হয়। অনেকেই মনে করেন, শ্রাবণ মাসের পর পর সোমবার শিবের পুজো করলে সকল মনের ইচ্ছে পূরণ হয়। তাই বিধি সহকারে প্রতি সোমবার অনেকেই মহাদেবের পুজো করে থাকেন। শ্রাবণ শিবরাত্রির পুজো করার সময় মহাদেবকে চাল অর্পন করতে ভুলবেন না। এমনটা মনে করা হয়, এই পুজোর সময় চাল অর্পন করলে আর্থিক সমস্যা কমে যায় এবং অর্থ বৃদ্ধি পেতে থাকে। এই বারে শ্রাবণ মাসে ৫ টি সোমবার। বিধি মেনে মহাদেবের পুজো করলে মিলবে সুফল।

২০২০ সালে শ্রাবণে ৫ টি সোমবারের পড়েছে - শ্রাবণের প্রথম সোমবার - ২০ জুলাই, শ্রাবণের দ্বিতীয় সোমবার পড়েছে ২৭ জুলাই, শ্রাবণের তৃতীয় সোমবার পড়েছে ৩ অগাষ্ট, শ্রাবণের চতুর্থ সোমবার পড়েছে ১০ অগাষ্ট, এবং শ্রাবণের পঞ্চম এবং শেষ সোমবার পড়েছে ১৭ অগাষ্ট।

 শ্রাবণ মাসের মহাদেবের পুজোয় তিল অর্পন করে মহামৃত্যুঞ্জয় মন্ত্র উচ্চারণ করলে দ্রুত সুফল পাওয়া যায়। শরীর থেকে সমস্ত রোগ দ্রুত নিরাময় হয়ে যায়। শ্রাবণ মাসের ব্রত পালনের সময় উপবাসের আগের দিন একবেলা নিরামিষ আহার গ্রহণ করার রীতি রয়েছে।  একে পারন বলা হয়। পারনের দিন একবেলা সেদ্ধ খাওয়ার রীতি রয়েছে। এদিনে কোনও ফোঁড়ন দিয়ে রান্না করা খাবার খাওয়া নিষিদ্ধ। খাওয়ার পাতে এদিনে লবনের পরিবর্তে সন্ধব লবন ব্যবহার করা উচিত। উপবাসের দিন সকাল বেলায় স্নান সেরে চার প্রহরে শিবলিঙ্গে জল ঢালা উচিত।

নিঁখুত বেলপাতা, ধূতরা ফুল ও নীলকন্ঠ ফুল মহাদেবের অত্যন্ত পছন্দের। চার প্রহরে একে একে দুধ, মধু, ঘি ও গঙ্গাজল দিয়ে শিবের মাথায় জল ঢালার রীতি রয়েছে। মহাদেবের ব্রতর সময় জল পান করার নিয়ম নেই, নির্জলা থেকে উপবাস রাখতে হয়।  তাই ব্রত ভাঙ্গার পর অন্তত ৬ থেকে ৮ গ্লাস জল অবশ্যই পান করুন। এতে শরীর সুস্থ থাকবে। বিধি মেনে শ্রাবণ মাসে মহাদেবের ব্রত পালন করলে সকল মনের ইচ্ছে পূরণ হয়।