বর্তমানে প্রশ্নকর্তার জন্মসময়, তারিখ এবং জন্মস্থানের ভিত্তিতে, জন্মকালে মহাকাশে গ্রহের অবস্থান নিরুপণ করে অথবা প্রশ্নের সময় গ্রহাদির অবস্থান নির্ণয় করে, অথবা হস্তরেখাবিচার, শরীরের চিহ্নবিচার ইত্যাদি বিভিন্ন পদ্ধতির ব্যবহারে প্রশ্নকর্তার ভবিষ্যতের গতিপ্রকৃতি নির্ধারণ করার জ্ঞান ও পদ্ধতিকে জ্যোতিষশাস্ত্র বলা হয়। আবার জ্যোতিষশাস্ত্রের একটি বিভাগ দেশ, রাজ্য, শহর, গ্রাম ইত্যাদির এবং প্রাকৃতিক ঘটনাবলীর যেমন বৃষ্টি, অতিবৃষ্টি, অনাবৃষ্টি, ভূমিকম্প, ঝড়, ঝঞ্ঝা, মহামারী বা প্লাবণের ভবিষ্যদ্বাণী করতেও ব্যবহৃত হয়।

আরও পড়ুন- চৈত্র মাস কেমন প্রভাব ফেলবে তুলা রাশির উপর, দেখে নিন

জ্যোতিষশাস্ত্র এমন একটি বিজ্ঞান যা বিভিন্ন জ্যোতিষ্ক অর্থাৎ গ্রহ-নক্ষত্রের অবস্থান বিবেচনা করে মানুষের ভাগ্যগণনা ও ভাগ্য নিরূপণ করে। যারা ভাগ্য গণনা করে তাদের বলা হয় জ্যোতিষ। জ্যোতিষ একটি সংস্কৃত শব্দ। এই শব্দের একটি অর্থ হল “জ্যোতির্বিষয়ক” এবং এই শব্দের একটি অর্থ হল “জ্যোতিষশাস্ত্রবিৎ” এবং অন্য অর্থ “জ্যোতির্ব্বিৎ”। প্রাচীণকাল থেকেই বেদের লিপিবদ্ধকরণের সময় যজ্ঞানুষ্ঠানের দিন, ক্ষণ ও মূহুর্তাদি নির্ণয়েও জ্যোতিষের বহুল ব্যবহার ছিল। 

আরও পড়ুন- রবিবার কেমন কাটবে আপনার, দেখে নিন আজকের রাশিফল

তবে অনেকেই আছেন যারা এই শ্রাস্ত্রকে বিশ্বাস করেন না। আর যারা বিশ্বাস করেন তাদের তো আর কথাই নেই। তবে বিশ্বাস অবিশ্বাসের কথার উপরে জ্যোতিষশাস্ত্রের মতে এমন কয়েকটি রাশি রয়েছে যাদের অর্থভাগ্য আগামী বছরে পরিবর্তন হওয়ার যোগ রয়েছে তবে স্পষ্ট নয়। কিন্তু সেই সমস্যা কাটিয়ে ওঠার জন্য মেনে চলতে হবে কিছু নিয়ম।  যদি সঠিক ভাবে সেই নিয়মগুলি পালন করা যায়, তবে সহজেই আপনি কাটিয়ে উঠতে পারবেন আর্থিক সমস্যা। তবে জেনে নেওয়া যাক নিয়মগুলি। 

আলমারি ঘরের উত্তর দিকে রাখুন। প্রত্যেকদিন ব্যবসার স্থানে বা বাড়িতে গণেশ ও লক্ষ্মীর পুজো করুন। বাড়িতে পুজো পাঠ করে স্থাপন করুন শ্রী যন্ত্রম। ব্যবসার স্থান হলে, ক্যাসবাক্সে কুবের যন্ত্র স্থাপন করুন। বছরে অন্তত একবার ধনলাভ যজ্ঞ করান। প্রতি শুক্লপক্ষের পঞ্চমী তিথিতে যজ্ঞ করালে তা অত্যন্ত শুভ ফল দেয়। আপনার বাড়ির যে স্থান সোনা বা টাকা রাখা থাকে সেখানে প্রতিটি শুভ ক্ষণে কাঁচি হলুদ ও কড়ি একসঙ্গে একটি লাল কাপড়ে বেধে রেখে দিন। প্রতি বৃহস্পতিবার লক্ষ্মীপুজো করে বা লক্ষ্মীঘট স্থাপন করে পুজো করে তুলসী তলায় দুধ ঢালুন। খেতে বসার আগে খাবারের কিছুটা অংশ পশু বা পাখিদের জন্য সরিয়ে রাখুন।