Asianet News BanglaAsianet News Bangla

আপনি কোটি কোটি টাকা হাতে পাবেন, হাতের তালুতে যদি এই রেখাটি থাকে

হস্তরেখা অনুসারে, যদি কোনও ব্যক্তির হাতে মঙ্গল রেখা এবং ভাগ্যরেখা মিলে যায় তবে এটি একটি খুব শুভ কাকতালীয় হিসাবে বিবেচিত হয়। এমন রেখাযুক্ত ব্যক্তিরা সমাজে জমিজমা ও সম্পত্তির সুবিধা থেকে শুরু করে জীবনে অনেক নাম পান। 

according to palmistry hand line will tell whether you will become a croropati bsm
Author
First Published Sep 23, 2022, 4:54 PM IST

হস্তরেখা অনুসারে, যদি কোনও ব্যক্তির হাতে মঙ্গল রেখা এবং ভাগ্যরেখা মিলে যায় তবে এটি একটি খুব শুভ কাকতালীয় হিসাবে বিবেচিত হয়। এমন রেখাযুক্ত ব্যক্তিরা সমাজে জমিজমা ও সম্পত্তির সুবিধা থেকে শুরু করে জীবনে অনেক নাম পান। এদের প্রভাবপ্রতিপত্তিও বেশি হয়। 

হস্তরেখায় বলা হয় একজন ব্যক্তির জীবনে অনেক কিছুই তার হাতের রেখার ওপর নির্ভর করে। জীবনের উত্থান-পতন থেকে শুরু করে জীবনের শুভ অশুভ সবই নির্ভর করে তার হাতের তালুতে। এমন কিছু রেখা রয়েছে, যা ওই ব্যক্তি ভাগ্যবান কিনা বলে। এছাড়াও রেখাগুলি যদি অন্যকোনও বিশেষ রেখার সঙ্গে মিলে যায় তাহলে কখনও তা শুভ যোগ তৈরি করছে বলে মনে করা হয়। কখনও আবার তা অশুভ ইঙ্গিত বলে আনে। এক নজরে দেখে নিন হাতের কোন রেখাটি আপনাকে কোটিপতি হওয়ার ইঙ্গিত দেয়। 


হস্তরেখা অনুসারে, হাতের তালুতে লাইফ লাইন প্রাথমিক অংশ থেকে উৎপন্ন হয়ে শুক্র পর্বতের দিকে অগ্রসর হওয়াকে মঙ্গল রেখা বলে। এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে যাদের হাতে মঙ্গল রেখা এবং ভাগ্যরেখা বা ফেথ লাইন একে অপরের সাথে মিলিত হয়, তাহলে এই কাকতালীয়টি খুব বিশেষ। অর্থাৎ হাতের তালুতে মঙ্গল রেখা থেকে একটি রেখা বেরিয়ে এসে ভাগ্যরেখার সঙ্গে মিলিত হলে এমন ব্যক্তিরা জীবনে অনেক উপকার পান।

এছাড়া কারো হাতে লাইফ লাইন বরাবর মঙ্গল রেখা চলে তাহলে মঙ্গল রেখাকে লাইফ লাইন সহায়ক রেখা বলা হয়। হস্তরেখার মতে, এই ধরনের মানুষের জীবনে সমস্যা আসে কিন্তু তা মানুষকে নষ্ট করে না। এছাড়াও এই লোকেরা খুব প্রতিভাবান। তারা নির্ভুলতা এবং চিন্তাভাবনার সাথে সবকিছু করতে পছন্দ করে।

এটি বিশ্বাস করা হয় যে যদি রেখাগুলির একটি শুভ সংমিশ্রণ থাকে তবে মঙ্গল পর্বতও শক্তিশালী হয়, যার কারণে এই জাতীয় লোকেরা তাদের লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যেতে থাকে। অন্যদিকে, ব্যক্তির হাতের তালুতে মঙ্গল রেখা থেকে বেরিয়ে শনি পর্বতের দিকে যাওয়া রেখাগুলি বয়সের একটি নির্দিষ্ট পর্যায়ে বিশেষ সুবিধা দেখায়। যার কারণে এই লোকেরা জমি-জমা-সম্পত্তির আনন্দ পাওয়ার পাশাপাশি পৈতৃক সম্পত্তি থেকে প্রচুর লাভও পান। তাদের জীবনে কোন কিছুর অভাব নেই এবং তারা স্বাচ্ছন্দ্যময় জীবন যাপন করে। জীবনের পথ সমৃণ হয়। 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios