আজ  বাঙালির নববর্ষ উৎসব। প্রত্যেক বছর খুব ধুমধাম করেই এই দিনটি পালন করা হয়।  কিন্তু করোনার জেরে  বিপর্স্ত হয়েছে গোটা জনজীবন। সারা বিশ্বকে গ্রাস করেছে এই করোনা ভাইরাস। দীর্ঘ ২১ দিনের লকডাউনের কালই শেষ দিন। যদিও শেষ বলা ভুল মহামারী থেকে বাঁচতে বাড়ানো হয়েছে লকডাউনের মেয়াদ। তাই এই বছরের নববর্ষের দিনটা যেমন বড্ড ফিকে। করোনার জেরে এই প্রথম লকডাউনের মধ্যে নববর্ষ পালন। তবে শাস্ত্র মতে, গণেশের পুজো দিয়েই  যে কোন পুজোর শুরু হয়। আর এর নেপথ্যে রয়েছে বিশেষ কারণ। সঙ্কটমোচন বলা হয় গণেশকে। তাই বছরের প্রথমদিন গণেশের পুজো দিয়েই কোনও শুভ কাজ করাটাই ভাল।
আরও পড়ুন-বৈশাখ মাসে জন্ম, তবে আপনার মধ্যে এই রয়েছে এই বিশেষ গুণ...

শাস্ত্র মতেও বলা হয়, সৌভাগ্যের দেবতা হলেন গণেশ।  আর এই সিদ্ধিদাতা গণেশের আর্শীবাদে সংসারে শ্রীবৃদ্ধি ফেরে। আজকের দিনে বিশেষ কিছু না করলেও এই ৫ মন্ত্র জপ করলেই  আপনার জীবনে সৌভাগ্য ফিরে আসবে। মন্ত্রটি হল, 'ওম নম হরম্ব মহামোদিত মম সঙ্কটান নিবারয় স্বহা'। এই মন্ত্রটি ৫ বার জপ করলেই আপনার জীবনে উন্নতি ফিরে আসবে । আজ সকালবেলাই ঘুম থেকে উঠে স্নান সেরে এই মন্ত্রটি জপ করুন। তারপর দুপুরবেলা ও সন্ধেবেলাও জপ করুন এই মন্ত্রটি।

আরও পড়ুন-জীবনের সমস্ত বাধা দূর করতে, বছরের প্রথম দিন থেকে রান্নাঘরে পালন করুন এই নিয়ম...

খুব ধুমধাম করে না হলে বাড়ির গণেশকে লাড্ডু বা মোতিচুর দিয়ে অবশ্যই পুজো দিন। গণেশ মূর্তি অবশ্যই লাল শালুর উপর বসিয়ে পুজো করুন। আর গণেশকে সবসময়েই সাদা ফুল দিয়ে পুজো করবেন।   প্রতিবারের থেকে এবারের চেহারাটা যেন পুরো উল্টো। এর আগেও লকডাউনের জেরে বাতিল হয়েছে অন্নপূর্ণা ও বাসন্তী পুজো। সমস্ত ব্যবসায়ী এই নববর্ষের দিনটিতে ব্যবসার হাল ফেরাতে সিদ্ধিদাতার আরাধনায় মেতে ওঠে। আর এই বছরও বাড়িতে বসেই গণেশের পুজো পাঠ করে ও মন্ত্র জপ বছরের প্রথম দিনটি শুরু করুন। তাহলে আজকের এই নববর্ষের দিনে এই ছোট্ট কয়েকটি কাজ করলেই আপনার ভাগ্য ফিরে আসবে।