জ্যোতিষশাস্ত্রে বিশ্বাস করে অনেকেই ভবিষ্যৎ-এর সমস্যা মেটানোর জন্য আগাম ব্যবস্থা নেন। জ্যোতিষীর মতে কেউ আংটি ধারণ করে, কেউ আবার বাস্তু নিয়ম মেনে চলেন আবার কখনও কোষ্ঠী বিচার করে ভবিষ্যৎ-এর সমস্যাগুলির প্রতিকার নিয়ে সাফল্য লাভের আশায়। তবে এই কোষ্ঠী বিচার করার জন্য প্রয়োজন সঠিক জন্ম সময়ের। জন্ম সময় সঠিক ভাবে বলতে না পারলে কোষ্ঠী বিচারও সঠিক ভাবে হয় না। তবে শুধুমাত্র জন্ম মাস জানতে পারলেই কোষ্ঠী বিচার না করেই আপনি জীবনে সাফল্য লাভ  করতে পারবেন। জ্যোতিষ শাস্ত্র মতে, জন্মমাস অনুযায়ী সামান্য কিছু নিয়ম মেনে চললেই আপনি জীবনে সফল হবেন। দেখে নেওয়া যাক সেই নিয়মগুলি-

  • বৈশাখ মাসে যাদের জন্ম তাদের সব সময় সঙ্গে রাখতে হবে মেরুন রং এর রুমাল। প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে প্রথমেই তামার পাত্রে জল পান করতে হবে। আগের দিন রাত্রে তামার পাত্রে জল রেখে, সেই জল পান পরদিন সকালে পান করতে হবে। এরসঙ্গে দিনে ২-৩টি এলাচ খেতে হবে।
  • আষাঢ় মাসে জন্ম হলে গাঢ় সবুজ রং-এর পোষাক ব্যবহার করুন এবং গায়ত্রী মন্ত্র জপ করুন। আপনার জন্ম যদি শ্রাবণ মাসে জন্ম হয় তবে প্রতি সোমবার শিবের মাথায় গঙ্গাজল ঢালুন, এরসঙ্গে অর্পণ করুন নিঁখুত একটি বেলপাতা। বেশিরভাগ সময় সবুজ রং এর পোষাক ব্যবহারের চেষ্টা করুন।
  • ভাদ্র মাসে জন্মগ্রহণ করলে ব্যবহার করুন কমলা রং-এর পোষাক। প্রতিদিন রাতে শোয়ার আগে ঈশ্বরের নাম স্মরণ করুন। আশ্বিন মাসে আপনার জন্ম হলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে রূপোর গহণা ব্যবহার করার চেষ্টা করুন। পোষাকের ক্ষেত্রে ব্যবহার করুন সাদা রং। 
  • কার্তিক মাসে জন্ম হলে পুরও জন্ম মাসে সন্ধ্যে বেলা ঠাকুরের আসনের সামনে একটি করে প্রদীপ জ্বালান। জন্ম অগ্রহায়ণ মাসে হলে সব সময় মেরুন রং এর পোষাক ব্যবহারের চেষ্টা করুন। সেই সঙ্গে লাল চন্দন বা লাল রং-এর টিপ ব্যবহার করুন।
  • আপনার জন্ম যদি পৌষ মাসে হয় তবে অফিসের ব্যাগে বা বাড়িতে বালিশের কভারের মধ্যে কাঁচা হলুদ রেখে দিন। সেই সঙ্গে গেরুয়া রং এর পোশাক ব্যবহার করুন। মাঘ মাসে আপনার জন্ম হলে কালো রং এর পোষাক ব্যবহার করুন এবং শক্তিমন্ত্র জপ করুন।
  • ফাল্গুমৃন মাসে আপনার জন্ম হলে নীল পোশার ব্যবহার করুন, সেই সঙ্গে আপনার সাধ্য মত দুঃখীকে দান করুন। আপনার জন্ম যদি চৈত্র মাসে হয় তাহলে গোলাপী বা হালকা কোনও রং এর পোষাক ব্যবহার করুন এবং সেই সঙ্গে প্রতিদিন গায়ত্রী মন্ত্র জপ করুন।