রক্ত প্রবাল বা লাল পলা এর নাম অনেক। অনেকেই বলেন রেড কোরাল অথবা মুঙ্গা পাথর। জ্যোতিষশাস্ত্র মতে, মঙ্গল গ্রহের সমস্যা থাকলে এই পাথর ধারণ করার পরামর্শ দেন জ্যোতিষীরা। রাশি অনুযায়ী মেশ, কর্কট এবং বৃশ্চিক রাশির জন্য প্রধান রত্ন হল এই রক্ত প্রবাল। জাপান ও ইতালিতে সবচেয়ে উত্কৃষ্ট মানের লাল প্রবাল পাওয়া যায়। এর মধ্যেও জাপান থেকে যে লাল প্রবাল পাওয়া যায় তার মান সর্বশ্রেষ্ঠ হয় তাই এই লাল প্রবালের দামও খুব বেশি। বেশির ভাগ দোকানে যে প্রবাল পাওয়া যায় তার ইতালীয় প্রবাল ।

আরও পড়ুন- ঝাঁটার ভুল ব্যবহার, সংসারে ডেকে আনতে পারে আর্থিক অনটন

জ্যোতিষীদের কথা মেনে আমরা অনেকেই রত্ন ধারণ করে থাকি। অথচ অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় সঠিক রত্ন ধারন করলেও কোনও কার্যসিদ্ধি হয় না। তখন আমরা জ্যোতিষী বা জ্যোতিষশাস্ত্রকেই অবিশ্বাস করতে শুরু করি। আপনি জানবেন কী করে যে রত্নটি আপনি ধারণ করেছেন তা একেবারে খাঁটি। এমনও তো হতে পারে নকল রত্ন কেনার জন্যই আপনার কোনও সমস্যারই সমাধান হচ্ছে না। তাই যে কোনও রত্ন কেনার আগে তা খাঁটি না কৃত্তিম তা অবশ্যই যাচাই করে নিন। জেনে নিন খাঁটি রক্ত প্রবাল ধারণের উপকারীতা।

 

আরও পড়ুন- ১২ টির মধ্যে এই ২টি রাশির অধিপতি শনি, জেনে সেই রাশি সম্পর্কিত ৫ বিশেষ তথ্য

লাল প্রবাল নানা আকার ও নানা মাপের হয়ে থাকে। যার যেমন প্রয়োজন সেই অনুযায়ী, রক্ত ধারনের পরামর্শ দেন জ্যোতিষীরা। জ্যোতিষশাস্ত্র মতে, লাল প্রবাল নিয়ন্ত্রণ করে মঙ্গল গ্রহকে। এই গ্রহ সুস্বস্থ্য, সাফল্য, আত্মবিশ্বাস, সাহস, মনোঃসংযোগের প্রতীক রূপে চিহ্নিত। তাই মঙ্গল দুর্বল হলে এই সমস্ত সমস্যাগুলি দেখা দিতে পারে। আর এই সমস্যা এড়ানোর জন্যই লাল প্রবাল বা পলা ধারণের পরামর্শ দিয়ে থাকেন জ্যোতিষীরা। বিশেষজ্ঞদের মতে এই রত্ন নার্ভের সমস্যা, পক্সের সমস্যা, সর্দি-কাশির মতন সমস্যার জন্য এই রত্ন খুবই উপযোগী। জানলে অবাক হবেন এই রত্ন ধারণের ফলে দাম্পত্য সমস্যা সমাধানেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। যাদের জন্ম নভেম্বর মাসে বিশেষ করে যাদের জন্ম ৯ নভেম্বর তাঁদের জন্য এই রত্ন অত্যন্ত  উপযোগী। এই রত্ন মঙ্গলবারেই ধারণ করা উচিত।