বর্তমানকালে বাস্তু গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আমাদের দৈনন্দিন জীবনে। কু-দৃষ্টির ফলে যেমন স্বাস্থ্যহানী হয়, একই রকমভাবে আর্থিক সমস্যাও দেখা দিতে পারে। অশুভ শক্তি বা কু-দৃষ্টির কারণে বাড়িতে বসবাসকারী সদস্যদের সমস্যা হয়। পাশাপাশি কাজে বিঘ্নও দেখা দেয়। মনে করা হয়, বাস্তুতে কিছু নিয়ম পালন করে এই কু-নজর এড়ানো যায় সহজেই। সার্বিক উন্নতি ও কু-নজর মুক্ত বাড়ি রাখতে মেনে চলুন বাস্তুর এই নিয়মগুলি। 

আরও পড়ুন- জৈষ্ঠ্য মাস কেমন প্রভাব ফেলবে সিংহ রাশির উপর, দেখে নিন

বাস্তুশাস্ত্র মতে বাড়িতে কি কচ্ছপের ফেং শুই থাকলে তা নেতিবাচক শক্তি অপসারণ এবং ইতিবাচক শক্তি বৃদ্ধি করে। বাস্তু দোষ যে বাড়িতে হয় সেখানে নেতিবাচকতা বজায় থাকে। বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতে, বাস্তু ত্রুটি দূর করতে ঘরে এই কচ্ছপের ফেং শুই রাখা উচিত। বাস্তু ত্রুটির কারণে বাড়ির অগ্রগতি বন্ধ হয়ে যায়। তাই ঘরের এই বাস্তু ত্রুটিগুলি দূর করতে এবং  সমৃদ্ধির জন্য ফেং শুই কচ্ছপের খুব উপকারী। জেনে নিন ঘরে রাখা এই ফেং সুই কত উপকারী-

বাস্তু ত্রুটি থেকে মুক্তি পেতে বাড়ির দক্ষিণ বা পশ্চিম দিকে এই কচ্ছপের ফেং শুই রাখা উচিত। আপনি যদি বাড়ির মাঝখানে নয়টি কচ্ছপ স্থাপন করতে পারেন তবে এর ফে বাড়িতে নয়টি গ্রহই পজেটিভ ভাবে কাজ করবে।  অথবা এই কচ্ছপের ফেং শুই বাড়ির প্রধান দরজার সামনে রাখলে মানসিক প্রশান্তি বৃদ্ধি করে। যদি আর্থিক সমস্যা দেখা দেয় তবে বাড়িতে, দোকান অথবা অফিসে কচ্ছপের ফেং শুই রাখুন। এই সমস্যার থেকে আপনি প্রতিকার অবশ্যই পাবেন। এর ফলে কাজে অগ্রগতিও হবে।
যে বাড়িতে এই কচ্ছপের ফেং শুই রাখা হয়, সেখানে বাসকারী লোকেরা সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হয় বলে মনে করা হয়। এমনকী পড়ার টেবিলে এই কচ্ছপের ফেং শুই রাখলে শিক্ষার প্রতি মনোযোগ বৃদ্ধি পায়।