ধর্মীয় বিশ্বাস অনুসারে মঙ্গলবার হনুমান দেবের দিন। এই দিন হনুমান এর পুজো করলে বিশেষ উপকার পাওয়া যায়। বজরঙ্গবলির আশীর্বাদ পেতে আগে ভগবান রামের কাছে প্রার্থনা করা উচিত এবং হনুমান চালিশা পাঠ করা উচিত। লকডাউনের কারণে আজ মানুষের মনে সন্দেহ, ভয়, হতাশা, অনিশ্চয়তা, ক্রোধ এবং অনেক মানসিক সমস্যা রয়েছে। বিজ্ঞানের মতে, ভয় এবং ক্রোধ ইমিউন সিস্টেমকে প্রভাবিত করে। একই সঙ্গে, প্রতিরোধ ক্ষমতার ভারসাম্য হ্রাসের কারণে মানুষ দ্রুত রোগে আক্রান্ত হয়। এমন পরিস্থিতিতে, আসুন জেনে নিই কীভাবে হনুমান চালিশা আপনার উপকার করতে পারে। 

আসলে, হনুমান চালিশার স্বাস্থ্যের কিছু বিশেষ রহস্য গোপন রয়েছে। তাই মঙ্গলবার হনুমান চালিশা পাঠ করুন। মনে করা হয় যে, আধ্যাত্মিক শক্তি অর্জন করে এবং  আধ্যাত্মিক শক্তির মাধ্যমেই মানুষ শারীরিক শক্তি অর্জন করতে পারে এবং সমস্ত ধরণের রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারে এবং এটি জয় করতে পারে। হনুমান চালিশা পাঠ করে একজন মনের ও মস্তিষ্কে আধ্যাত্মিক শক্তি লাভ করে। বজরঙ্গবলি শক্তি, বুদ্ধি এবং জ্ঞানার্জনের দাতা বলা হয়, তাই হনুমান চালিশার পাঠ করা স্মৃতি ও প্রজ্ঞা বৃদ্ধি করে। এর সঙ্গে আধ্যাত্মিক শক্তিও পাওয়া যায়। তাই মনে করা হয় প্রতিদিন হনুমান চালিশা পাঠ মনোবল বাড়ায়।

হনুমান চালিশা পাঠ করার মাধ্যমে পবিত্রত অনুভূতি বিকাশ লাভ করে এবং মনোবল বৃদ্ধি পায়। মনোবল যদি উচ্চ হয় তবে আপনি সমস্ত সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন। হনুমান চালিশার একটি লাইন রয়েছে- 'অষ্ট সিদ্ধি নব নিধির দাতা, আসওয়ার দিন জানকি মাতা।' এর অর্থ ভয় ও মানসিক চাপের কারণে সমস্ত দুর্দশা দূর হবে। এই চলিশা পাঠ কোনও কারণ ছাড়াই মনের ভয় দূর করে। হনুমান চালিশা আপনাকে ভয় ও মানসিক চাপ থেকে মুক্তি দিতে খুব কার্যকর। এই হনুমান চলিশা আপনার সমস্ত দুর্ভোগ থেকে মুক্তি দিতে সাহায্য করে বলে মনে করা হয়।