জ্যোতিষশাস্ত্র মতে, জন্মের সময় পৃথিবী যে রাশিকে অতিক্রম করে সেই রাশিকে জন্ম-লগ্ন বলে। এখন দেখে নেওয়া যাক মেষ লগ্নের জাতক- জাতিকার ব্যক্তিত্ব কেমন হয়। এই লগ্নের ব্যক্তিরা সব সময় কাজের মধ্যে থাকতে পছন্দ করেন। কর্মময় জীবন এরা পছন্দ করেন। ছোটবেলা থেকেই এরা তেজস্বী, স্পষ্টবক্তা ও নির্ভীক প্রকৃতির হয়ে থাকেন। গুরুজন ও শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিদের সর্বদা মান্য করে চলেন। এই লগ্নের ব্যক্তিত্বরা তোষামোদ প্রিয় ও বন্ধুবৎসল হলেও এরা সবার সঙ্গে মন খুলে মিশতে পারেন না।

এদের জীবনে প্রচুর সমস্যা ও উত্থান পতন থাকলেও, যে কোনও সমস্যা এরা সহজেই কাটিয়ে উঠতে পারে। এই লগ্নের ব্যক্তিরা অন্যায় একদম সহ্য করতে পারে না, তাই প্রতিবাদী হওয়ায় শত্রু সংখ্যা বৃদ্ধি পায়। যারা এদের মন জুগিয়ে চলতে পারে তাদের জন্য এরা সমস্তটাই ত্যাগ করে দিতে পারে। এদের উন্নতির জন্য খুব পরিশ্রম করতে হয়। সহজেই সাফল্য এদের ধরা দেয় না। এই জাতকের আর্থিক উন্নতি ব্যবসার মধ্যে দিয়েই হয়। এই জাতকের সব কিছুই খুবই চিন্তা ভাবনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া দরকার। 

এরা অত্যাধিক সাহসী এবং স্পষ্টভাষী, সেই কারনে খুব সহজেই বিপদে পড়তে হয়। তবে কোনও কিছুকেই এরা উপেক্ষা করেন না। এই লগ্নের জাতক জাতিকারা সাধারণত তীক্ষ্ণ বুদ্ধি ও ব্যাপক বিচারবোধ থাকার ফলে যে কোনও সিদ্ধান্ত এরা খুব দ্রুত নিতে পারে। কায়িক শ্রমের চেয়ে এরা মস্তিষ্কের শ্রমেই বেশি সফল।  এদের মতে উন্নতিই আসল, তা যে কোনও পরিস্থিতিতেই হোক না কেন!