ইশ্বরের প্রতি বিশ্বাস বা আস্থা রেখে চলেন যারা, তারা সর্বদা চেষ্টা করেন নিয়ম মেনেই ইশ্বরের আরাধনা করার। নতুন বাড়ি হোক, বা বাড়িতে নতুন ঠাকুর আনা হক, কোথায় প্রতিষ্ঠিত করা হবে সেই ঠাকুরকে তা যথেষ্ট যত্নের সঙ্গে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তাই এই সময় মাথায় রাখুন, বাড়িতে ঠিক কোন জায়গায় বা কোন ঘরে কোন ঠাকুর রাখলে বজায় থাকবে শান্তি। তাই ঠাকুর রাখার আগেই জেনে নিন কোথায় রাখলে বজায় থাকবে ঘরের শান্তি। 

১. কৃষ্ণের মূ্র্তি সবসময় শোওয়ার ঘরে রাখা উচিত। এর ফলে বৈবাহিক জীবন সুখের হয়। শুধু তাই নয়, এতে বৈবাহিক সম্পর্কও ভালো থাকে। 
২. বাড়ির যে কোনও স্থানে হনুমানজী মূর্তি রাখলেই তা থেকে পরিবারের শান্তি বজায় রাখে। অশুভ শক্তির আঁচ পরে না পরিবারের ওপর। তা থেকে পরিবারকে রক্ষা করতে বাড়িতে রাখুন হনুমানজীর মূর্তি।
৩. বাড়িতে নির্দিষ্ট একটি জায়গায় মা লক্ষ্মীর মূর্তি রাখুন। জায়গাটি অবশ্যই পরিষ্কার হতে হবে। নইলে সকলেই যানেন লক্ষ্মী চঞ্চলা। তাকে ধরে রাখলে পরিবারে সুখ শান্তি বজায় থাকবে। 
৪. শুনতে মজার লাগলেো মাথায় রাখুন বাড়িতে কুরুক্ষেত্র বা রামায়নের কোনো ছবি রাখবেন না। তাতে সমস্যা বা বিবাদ বাড়ে। ছবি মানুষের মস্তিষ্কে প্রভাব ফেলে। তাই বাড়িতে ছবি বুঝে শুনেই রাখা উচিত। 
৫. সরস্বতি ঠাকুরের মুখ সবসময় বাড়ির উত্তর পূর্ব দিক করে রাখা উচিত। তাতে দেবীর কৃপা দৃষ্টি পরে সকলের ওপর।
৬. দূর্গার মূর্তি বা গণেশ ঠাকুরের মূর্তি বসার ঘরে বা বাড়ির মূল গেটের সামনে রাখলে তা পরিবারের জন্য শুভ হয়।