যার বাড়ি যতই ছোট হোক না কেন, সেখানে একটা ঠাকুর ঘরের ব্যবস্থা সাধ্য মতন সকলেই করে থাকেন। যাদের একটা মাত্র ঘর তারাও ঠাকুরের একটি ঠবি বা এক কোণে আসন পেতে বসিয়ে রাখেন, ফলেই ইশ্বরের আরাধনায় কোনও রূপ খামতির জায়গা রাখত পছন্দ করেন না কেউই। তাই পুজো করার সময় কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখা একান্ত প্রয়োজন। নিজের মতন করে এই জিনিস গুলো দিয়ে সাজিয়ে ফেলুন আপনার সাধের ঠাকুর ঘর। দেখবেন ঘুরবে ভাগ্যের চাকা।

. পুজোর আসনে রাখুন একটি শঙ্খ। প্রত্যহ পুজোর পুরে শঙ্খ বাজিয়ে পুজো শেষ করুন।
২. ঠাকুর ঘরে রাখুন একটি ঘন্টা। এর শব্দে নাকি সব প্রকারের অশুভ শক্তির ক্ষমতা অনেক অংশে কমে যায়।
৩. আসনের সামনে সিঁদুর দিয়ে পদ্ম আঁকুন। তার ওপরে বসান দেবীর ঘট। তাতেই তুষ্ট মা লক্ষ্মী।
৪. প্রতিদিন ঠাকুরের আসনে রাখুন দুটি প্রদীপ। তাতে ঘি দিয়ে ও সলতে দিয়ে জ্বালিয়ে দিন দুইবেলা। মিলবে সুফল।
৫. ঠাকুরের জায়গায় যেন সূর্যের আলো সরাসরিভাবে প্রবেশ করতে পারে সেই দিকে নজর রাখুন। নয়তো বাস্তুগত সমস্যা দেখা দিতে পারে।
৬. ঠাকুর ঘরের চামড়ার কোনও জিনিস রাখবেন না। তাতে বেজায় অসন্তুষ্ট হন মা লক্ষ্মী। তাই চামড়ার জিনিস এড়িয়ে চলুন।