স্থাপত্য উপবেদ বা স্থাপত্যশাস্ত্র চারটি উপবেদের অন্যতম।  প্রায় ৫০০০ বছর ধরে বাস্তুবিদ্যা কালের বিরুদ্ধে নিরন্তর সংগ্রামে জয়ী হয়েছে। বৈদিক যুগে স্থাপত্য বিজ্ঞান মূলত মন্দির নির্মাণে ব্যবহৃত হত। পরবর্তীতে তা বিস্তার লাভ করে। শাস্ত্র অনুযায়ী রয়েছে চার দিক যেমন, উত্তর, দক্ষিণ, পূর্ব, পশ্চিম, ও চার কোন যেমন- ঈশান, নৈর্ঋত, অগ্নি এবং বায়ু। আর আপনার বাস্তুতে এই প্রত্যেকটি দিক বা কোনের রয়েছে আলাদা আলাদা গুরুত্ব। তাই সমস্ত সমস্যা কাটিয়ে উঠতে বাস্তুর কিছু নিয়ম পালন করা গুরুত্বপূর্ণ। 

বাস্তু টিপস আমাদের বাড়ির ইতিবাচক শক্তি বৃদ্ধি করতে এবং নেতিবাচকতা দূর করতে সহায়তা করতে পারে। বাস্তু বলতে সব কিছুকেই বুঝায়- তা একটি স্থান হতে পারে- কিংবা একটা বাড়িও হতে পারে। প্রত্যেকেই নিজেদের সাধ্যমতো পরিবারকে ভাল রাখার আপ্রাণ চেষ্টা করে। কিন্তু মাঝে মাঝে পরিবারের মধ্যে বাস্তু দোষ থাকলে তা স্বাস্থ্যের উপরও বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে। বাস্তু দোষের কারণে পরিবারের সুখ শান্তি নষ্ট হতে পারে,ফলে নানা অশান্তি, অসুস্থতা পরিবারে লেগেই থাকে। যা পরিবারের জন্য অত্যন্ত খারাপ। নিজের পরিবারকে ভাল রাখতে বাস্তু দোষ কাটাতে মেনে চলুন এই নিয়মগুলি।

সূর্য ওঠার সঙ্গে সঙ্গে ঘরের দরজা-জানলা সব খুলে দিন। সূর্যের আলো ঘরে প্রবেশ করলে পজিটিভ এনার্জি প্রবেশ করে। তা পরিবারের শান্তি ফিরে আসে। দিনের কিছুটা সময় খোলা আকাশের নীচে সময় কাটান। এতে যেমন একঘেয়েমি কাটবে তেমনি মনও ভাল লাগবে। কখনওই খাবার নষ্ট করবেন না। এতে সংসারের অমঙ্গল হয়। খাওয়া হয়ে গেলে সর্বদা খাওয়ার প্লেট ধুয়ে রাখুন। এঁটো বাসন ঘন্টার পর ঘন্টা ফেলে রাখবেন না। চায়ের পাত্র সব সময় ধুয়ে রাখুন অন্তত তাতে জল ঢেলে রাখুন। বেডরুমের ঘড়ি বন্ধ হয়ে গেলে তা চালু করার চেষ্টা করুন।  কারণ বন্ধ ঘরে কখনওই গৃহস্থ থাকা উচিত নয়। কারণ ঘড়ি বন্ধ মানে নিজের ভাগ্য থেমে যাওয়া। বাড়ির বেডরুম সব সময় যতটা পারবেন পরিস্কার, পরিচ্ছন্ন রাখুন। বাড়ির বাথরুম সর্বদা পরিষ্কার রাখুন। বাড়ির বাথরুমের দরজা কখনওই খুলে রাখবেন না।