করোনা ভাইরাসের থেকে রক্ষার জন্য সেল্ফ কোয়ারেন্টাইন, হোম আইসোলেশন এবং লকডাউন এই শব্দগুলির সঙ্গে আমরা প্রত্যেকেই এখন পরিচিত। তবে জানলে অবাক হবে এই করোনার দৌলতে আমরা সেল্ফ কোয়ারেন্টাইনের বিষয়ে প্রথম মুখোমুখি হলেও প্রতি বছর এই রীতি পালিত হয়ে আসছে পুরীর জগন্নাথ মন্দিরে। আর সেল্ফ কোয়ারেন্টাইনে থাকেন জগন্নাথ, বলরাম ও শুভদ্রা তিনজনেই।

প্রতি বছর সাধারণত জুন মাসেই অনুষ্ঠিত হয় 'স্নান যাত্রা' অনুষ্ঠান। এর ফলে প্রায় গরম থেকে বাঁচতে স্নানযাত্রায় ১০৮ কলসি জল ঢেলে স্নান করানো হয় জগন্নাথ, বলরাম ও সুভদ্রাকে। রপরই সর্দি-জ্বরে আক্রান্ত হন তিন ভাইবোন। অসুখ সারাতে এই সময় ১৪ দিনের জন্য তাঁদের সবার অলক্ষ্যে রাখা হয়। এই প্রথা-কে বলা হয় ''অনাসারা"। আর এই প্রথা অত্যন্ত প্রাচীণ একটি প্রথা। বহু বছর ধরেই এই প্রথা চলছে পুরীর মন্দিরে।

এই ১৪ দিন প্রতিদিনের প্রথার থেকে আলাদা ভাবে সেবা করা হয় জগন্নাথ, বলরাম ও শুভদ্রার। এই সময় সেবায়েতরা বিশেষ 'ফুলুরী তেলা' সেবা করেন। জানা গিয়েছে এই সেবা রোগ নিরাময়ের এক বিশেষ ধরন। আমাদের কারও কারও কাছে সেল্ফ কোয়ারেন্টাইন বা হোম আইসোলেশন ভীতিকর মনে হতে পারে। তবে এই প্রথাগুলি প্রাচীণ ভারতীয় চিকিৎসাশাস্ত্রে স্থান পেয়েছে। এই প্রথা তাই বহু যুগ ধরেই ভগবান জগন্নাথ মন্দিরের প্রথাগুলির মধ্যে অন্যতম একটি রীতি।