স্বপ্ন সম্বন্ধে অনেক দর্শন, বিজ্ঞান, কাহিনী ইত্যাদি আছে। মজার বিষয় হল, পেটে কোনও সমস্যা থাকলে বা উল্টো পাল্টা বেশি কিছু খেয়ে নিলেও স্বপ্নের মাত্রা বাড়তে পারে বলে ধারণা গবেষকদের। মানুষ অনেক স্বপ্ন দেখে, তবে সব স্বপ্ন মনে রাখতে পারে না। স্বপ্নের অর্থ সম্পর্কে ভিন্ন ভিন্ন লোক ভিন্ন ভিন্ন মতামত পোষণ করেছে। মনোবিদদের মতে, আমাদের অবচেতনের ভাবনা-চিন্তা, ভয় বা ইচ্ছার প্রতিফলন হল এই স্বপ্ন। তবে এই স্পপ্ন সম্পর্কে অন্যান্য বিশ্বাসও রয়েছে। প্রচলিত বিশ্বাস আর জ্যোতিষশাস্ত্র অনুযায়ী, প্রত্যেক স্বপ্নের মধ্যেই কোনও না কোনও অর্থ লুকিয়ে রয়েছে। স্বপ্নে মানুষ অনেক কিছুই দেখে যার সঙ্গে বাস্তবের কোনও মিল থাকে না বলেই আপাতভাবে মনে হয়।

 ১৯৬৬ সালে হল এবং ভ্যান দ্য ক্যাসল, দ্য কন্টেন্ট এনালাইসিস অফ ড্রিমস নামে একটি গ্রন্থ প্রকাশ করেন। তাতে জানা গিয়েছে প্রতিটি স্বপ্নেরই আলাদা আলাদা মানে রয়েছে। প্রায় ৫০০০ বছর আগে মেসোপটেমিয়ায় স্বপ্ন সম্পর্কে যে প্রাচীন রেকর্ডগুলি পাওয়া গিয়েছিল তা মূলত কাদামাটি দিয়ে তৈরি পাত্রতে নথিভুক্ত ছিল। গ্রিক এবং রোমান যুগে মানুষরা স্বপ্নকে এক বা একাধিক দেবতার থেকে প্রত্যক্ষ বার্তা অথবা মৃত ব্যক্তিদের থেকে আসা বার্তা যা প্রধাণত ভবিষ্যদ্বাণী হিসাবে গণ্য করা হত। অর্থাৎ প্রতিটি স্বপ্নেরই কোনও কোনও মানে রয়েছে।

ঠিক একইভাবে বিশেষজ্ঞদের মতে, স্বপ্নে বার বার মৃত্যু দেখার অর্থ হতে পারে নিজের জীবন থেকে কোনও অধ্যায়কে মুছে ফেলার সুতীব্র তাগিদ।  অথবা কোনও  প্রিয় এবং কাছের মানুষকে আপনি হারিয়েছেন এবং সেই দুঃখ কিছুতেই ভুলতে পারছেন না, এমন পরিস্থিতিতে এই স্বপ্ন বারবার ফিরে আসে অবচেতনে। আবার অনেক ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে যদি কোনও ব্যক্তি নিজের প্রতি কোনও অসন্তোষ মনে মনে পুষে রাখেছেন, তার ফলে এই ধরণের স্বপ্ন বারবার ফিরে আসতে পারে। কোনও ব্যক্তির উপর অত্যন্ত রাগ রয়েছে আপনার, তাঁর কাজে আপনি অত্যন্ত বিরক্ত তবুও আপনাকে বাধ্য হয়ে তার সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে হচ্ছে। প্রতিনিয়ত এই মতবিরুদ্ধ পরিস্থিতির সম্মুখীন হওয়ার ফলেও এই স্বপ্ন ফিরে আসতে পারে।