স্কন্দ ষষ্ঠী ব্রত ২০২১, ১৮ জানুয়ারী সোমবার পালন করা হবে। বিশ্বাস করা হয় যে, স্কন্দ ষষ্ঠীর উপবাস ভগবান শিবের জ্যেষ্ঠ পুত্র ভক্ত ভগবান স্কন্ধের অর্থাৎ কার্তিকের প্রতি উত্সর্গ করা হয়েছিল। ভগবান কার্তিক-কে সন্তুষ্ট করতে এবং প্রার্থনা করার জন্য ভক্তরা স্কন্দ ষষ্ঠীর উপবাস করেন। এই ব্রত মূলত দক্ষিণ ভারতের জনপ্রিয়। তবে বর্তমানে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এই ব্রত পালন করা হয়। কার্তিককে ভগবান শিব ও মা পার্বতীর বড় পুত্র হিসেবে স্থান দেওয়া হয়। আসুন জেনে নেওয়া যাক এই উপাসনা পদ্ধতি এবং স্কন্দ ষষ্ঠীর ব্রতের ধর্মীয় তাত্পর্য।

আরও পড়ুন- কালসর্প দোষে জর্জরিত, এই মাসেই নিয়ম মেনে কাটিয়ে উঠুন সমস্যা

স্কন্দ ষষ্ঠী উপবাসের পদ্ধতি: - 
ষষ্ঠীর দিন সকালে খুব তাড়াতাড়ি উঠে ঘর পরিষ্কার করে। এরপরে, স্নান এবং ধ্যান করার পরে, প্রথমে ব্রত স্থান সাজিয়ে নিন। ঠাকুর ঘরে মা গৌরী ও শিবের সঙ্গে ভগবান কার্তিকের মূর্তি বা ছবি স্থাপন করুন। জল, ফল, ফুল, বাদাম, প্রদীপ,হলুদ, চন্দন, দুধ, গরুর ঘি, সুগন্ধি দিয়ে নৈবেদ্য সাজিয়ে পুজো করুন। পুজো শেষে আরতি করুন। সন্ধ্যায় কীর্তন-ভজন ও পুজোর পরে আরতি করুন। এর পরে, একটি উপবাস ভেঙ্গে, প্রসাদ বিতরণ করুন।

আরও পড়ুন- বৃষ রাশির কতটা উন্নতি হবে মাঘ মাসে, দেখে নিন

স্কন্দ ষষ্ঠীর উপবাসের ধর্মীয় গুরুত্ব:

ধর্মীয় বিশ্বাস অনুসারে, স্কন্দ ষষ্ঠীর দিন ভগবান কার্তিক্যের পুজো হয়। এই উপাসনার মাধ্যমে জীবনের সমস্ত ধরণের অসুবিধা দূর হয় এবং যারা ব্রত রাখে তারা সুখ ও গৌরব অর্জন করে। এছাড়াও, এই উপবাসটি সন্তান লাভ এবং সন্তান-এর সুখ কামনার জন্য করা হয়। যদিও এই উত্সব দক্ষিণ ভারতে বিশিষ্টভাবে উদযাপিত হয়। দক্ষিণ ভারতে ভগবান কার্তিক সুব্রহ্মণ্যম নামেও পরিচিত। তাঁর প্রিয় ফুল চম্পা, তাই এই উপবাসটি চম্পা ষষ্ঠী নামেও পরিচিত।