গ্রহণ প্রকৃতির এক অপূর্ব দৃশ্য। এর সঙ্গে সম্পর্কিত অনেকগুলি স্বাস্থ্য উদ্বেগের কারণে অনেকেই ভীত থাকেন। গ্রহণ দেখার কিছু খারাপ প্রভাব বিজ্ঞান দ্বারা প্রমাণিত হয় আবার কিছু কিছু জ্যোতিষীয় বিশ্বাস। তবে এর পিছনে কোন বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই, বরং এটি কেবল গ্রহের নক্ষত্রের বিষয়। তবে এটি যখন আমাদের সুরক্ষা এবং স্বাস্থ্যের বিষয়, তখন প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন করা দরকার। আজ বছরের শেষ চন্দ্রগ্রহণ। 

আরও পড়ুন- পুজোর ব্যবহৃত পান বদলে দিতে পারে ভাগ্যের চাকা, জেনে নিয়ে কাজে লাগান এই টোটকা

জ্যোতিষশাস্ত্রের মতে, চন্দ্রগ্রহণ এবং সূর্যগ্রহণ প্রতিটি ব্যক্তির জীবনে কিছু ইতিবাচক এবং নেতিবাচক প্রভাব রয়েছে। চন্দ্রগ্রহণ এর তারিখ এবং সময়- গ্রহণ শুরু হবে ৩০ নভেম্বর সোমবার দুপুর ১ টা বেজে ৪ মিনিটে। গ্রহণ এর মধ্যকাল দুপুর ৩ টে বেজে ১৩ মিনিটে  গ্রহণ শেষ  সন্ধ্যা ৫ টা বেজে ২২ মিনিটে। বছরের এই শেষ চন্দ্রগ্রহণ এশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, প্রশান্ত মহাসাগর এবং আমেরিকার কিছু অংশে দৃশ্যমান হবে। এই চন্দ্রগ্রহণ ভারতে দেখা যাবে না, তাই ভারতে এটির প্রভাব পড়বে না।  

আরও পড়ুন- বাড়ির এই দিকে টাকা রাখলে, কখনোই হবে না অর্থাভাব

এই সময়ের চন্দ্রগ্রহণ দেখা যায় বৃষ এবং রাহিনী নক্ষত্র মণ্ডলে। জ্যোতিষশাস্ত্রে চন্দ্রগ্রহণ একটি বড় ঘটনা হিসাবে বিবেচিত হয়। ধারণা করা হয় যে গ্রহনের সময় রাহু-কেতু নামে দুটি পাপ গ্রহ চাঁদ গ্রাস করার চেষ্টা করে। এই সময়ে চাঁদ এই দুটি গ্রহ থেকে পালানোর চেষ্টা করে। রাহু-কেতুর কারণে চাঁদ প্রচণ্ড ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে যায় এবং এর শক্তি দুর্বল হয়। ২০২০ বছরের শেষ চন্দ্রগ্রহণের দেখা মিলবে আজ। এই বছর মোট ৪ টি চন্দ্রগ্রহণ এবং ২ টি সূর্যগ্রহণ মিলিয়ে মোট ৬ টি গ্রহণ হয়েছে। যার মধ্যে সর্বশেষ চন্দ্রগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ৩০ নভেম্বর এবং শেষ সূর্যগ্রহণ হবে বছরের শেষ মাস ডিসেম্বরে। বছরের এই শেষ চন্দ্রগ্রহণ একটি উপচ্ছায়া চন্দ্রগ্রহণ হবে, যার কারণে চন্দ্রগ্রহণের সময়কাল বৈধ হবে না।