মানব জীবনে কর্মফল অনুযায়ী ব্যক্তি তাঁর জীবন ভোগ করেন। তবে অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় আর্থিক কোনও সমস্যা না থাকা সত্ত্বেও অনেকেই অযাচিত কিছু সমস্যায় বার বার জড়িয়ে পরেন। যার ফলে দুর্বিসহ হয়ে ওঠে জীবন যাপন। তাই সেই সকল ছোটখাটো সমস্যা কাটিয়ে সংসার সুখ ও সমৃদ্ধিতে ভরে তুলতে মেনে চলা উচিত ঠাকুর ঘরের কিছু নিয়ম। 

প্রত্যেকের বাড়িতেই ঠাকুরঘর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ স্থান। কিন্তু এই ঠাকুরঘরেরও কয়েকটি নিয়ম আছে। ঠাকুর ঘরে অনেক সময়েই আমরা অনেক ঠাকুরের ছবি বা প্রতিকৃত রাখতে গিয়ে অজান্তেই কিছু ভুল করে ফেলি। শাস্ত্র মতে, এমন কিছু ঠাকুরের ছবি আছে যেগুলি পাশাপাশি রাখলে হতে পারে মহা সমস্যা। তাই সমস্য়া কাটিয়ে উঠতে জেনে নিন ঠাকুর ঘরে কোন কোন ঠাকুরের ছবিগুলি পাশাপাশি রাখলে হতে পারে জটিল সমস্যা। জেনে নিন সেই সমস্যাগুলি-

রান্নাঘরের বিপরীতে বা রান্নাঘরের কাছাকাছি যেন ঠাকুরঘর না হয়। বাথরুমের সামনে বা কাছাকাছি যেন ঠাকুরঘর না থাকে। মন্দিরে বহু সংখ্যক ঠাকুর রাখা যায়, তবে বাড়ির পুজো ঘরে ঠাকুর রাখার ক্ষেত্রে রয়েছে কিছু নিয়ম। একই ঘরে ঠাকুরের তিনটি মূর্তি রাখা উচিত নয়। ঠাকুরঘরে শিবলিঙ্গ রাখাও বিপজ্জনক। কারণ, শিবলিঙ্গ রাখলে তাঁকে নিয়মিত নিয়ম মেনে পুজো করা উচিত। না হলে ঘরে অশান্তি তৈরি হয়। যে ভগবানের সৃষ্টি সবার পূর্বে তাঁর মূর্তি সবার উপরে রাখুন। গণেশের সঙ্গে রিদ্ধি এবং সিদ্ধির ছবিও রাখা উচিত নয়। বাড়িতে আলাদা করে ঠাকুর ঘর রাখার চেষ্টা করুন। ঠাকুর ঘর সব সময়ে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন। ঠাকুর ঘর কখনই তালা বন্ধ করে রাখবেন না।